For the best experience, open
https://m.eimuhurte.com
on your mobile browser.
OthersWeb Stories খেলা ছবিঘরতৃণমূলে ফিরলেন অর্জুন সিংবাংলাদেশপ্রযুক্তি-বাণিজ্যদেশকলকাতাকৃষিকাজ বিনোদন শিক্ষা - কর্মসংস্থান শারদোৎসব লাইফস্টাইলরাশিফলরান্নাবান্না রাজ্য বিবিধ আন্তর্জাতিককরোনাএকুশে জুলাইআলোকপাতঅন্য খবর
Advertisement

রিজার্ভ ব্যাঙ্কের কার্যালয় বোমা মেরে উড়িয়ে দেওয়ার হুমকি ইমেলে

05:24 PM Dec 26, 2023 IST | Sundeep
রিজার্ভ ব্যাঙ্কের কার্যালয় বোমা মেরে উড়িয়ে দেওয়ার হুমকি ইমেলে
Advertisement

নিজস্ব প্রতিনিধি, মুম্বই: কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন ও রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নর শক্তিকান্ত দাসকে অবিলম্বে ইস্তফা দিতে হবে। না হলে বোমা মেরে উড়িয়ে দেওয়া হবে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের প্রধান কার্যালয়। মঙ্গলবার বিকেলে এমনই হুমকি ইমেল পেয়েছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষ। শুধু রিজার্ভ ব্যাঙ্ক নয়, দুই বেসরকারি ব্যাঙ্ক আইসিআইসিআই এবং এইচডিএফসি ব্যাঙ্কও উড়িয়ে দিয়ে  হুমকি মেল পাঠানো হয়েছে। ইতিমধ্যেই ওই হুমকি মেল নিয়ে ব্যাপক শোরগোল পড়ে গিয়েছে। তড়িঘড়ি তদন্তে নেমেছেন মুম্বই পুলিশের সাইবার অপরাধ শাখার গোয়েন্দারা।

Advertisement

মঙ্গলবার সকাল ১০টা ৫০ মিনিটে খিলাফত ইন্ডিয়া নামে এক ইমেল অ্যাড্রেস থেকে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নরের কার্যালয়ে এক হুমকি মেল পাঠানো হয়েছে। ওই হুমকি মেলে লেখা হয়েছে, ‘মুম্বইয়ের বিভিন্ন স্থানে  ১১টি বোমা রাখা হয়েছে। রিজার্ভ ব্যাঙ্ক-সহ অন্যান্য বেসরকারি ব্যাঙ্কগুলি  দেশের স্বাধীনতার ইতিহাসে সবচেয়ে বড় ধরনের আর্থিক কেলেঙ্কারি ঘটিয়েছে। আর ওই কেলেঙ্কারিতে জড়িত রিজার্ভ ব্যাঙ্ক গভর্নর শক্তিকান্ত দাস, কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন এবং বেসরকারি ব্যাঙ্কগুলির একাধিক শীর্ষ আধিকারিক। ওই কেলেঙ্কারির উপযুক্ত এবং সুনির্দিষ্ট তথ্য হাতে রয়েছে। আমরা চাই ওই কেলেঙ্কারি নিজেরাই প্রকাশ্যে এনে ইস্তফা দিন রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নর ও কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী।’

Advertisement

হুমকি মেলে দুপুইর দেড়টা পর্যন্ত শক্তিকান্ত দাস ও নির্মলা সীতারমনের ইস্তফার জন্য সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হয়েছিল। সেই সঙ্গে হুমকি দেওয়া হয়েছিল, দেড়টার মধ্যে ইস্তফা না দিলে বোমা মেরে গুঁড়িয়ে দেওয়া হবে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের প্রধান কার্যালয়, চার্চ গেটের এইচডিএফসি হাউস এবং বান্দ্রা-কুরলা কমপ্লেক্সে আইসিআইসিআই ব্যাঙ্কের মুখ্য কার্যালয়। ওই হুমকি মেল পাওয়ার পরেই উল্লেখিত তিন জায়গায় ব্যাপক তল্লাশি অভিযান শুরু করে মুম্বই পুলিশ। যদিও সন্দেহজনক কিছু মেলেনি। এমআরএ মার্গ থানায় এ বিষয়ে এফআইআর দায়ের করে তদন্ত শুরু হয়েছে।

Advertisement
Tags :
Advertisement