For the best experience, open
https://m.eimuhurte.com
on your mobile browser.
OthersWeb Stories খেলা ছবিঘরতৃণমূলে ফিরলেন অর্জুন সিংবাংলাদেশপ্রযুক্তি-বাণিজ্যদেশকলকাতাকৃষিকাজ বিনোদন শিক্ষা - কর্মসংস্থান শারদোৎসব লাইফস্টাইলরাশিফলরান্নাবান্না রাজ্য বিবিধ আন্তর্জাতিককরোনাএকুশে জুলাইআলোকপাতঅন্য খবর
Advertisement

ঘূর্ণিঝড়ের দুর্যোগের মধ্যে আগুনে পুড়ে ছাই চন্দ্রকোণার এক মজুরের বাড়ি

ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার চন্দ্রকোনা ১ নম্বর ব্লকের এক নম্বর লক্ষীপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের শ্রীনগর বাসুলিয়া গ্রামের নরেন্দ্রনাথ পন্ডিত ও সন্ন্যাসী পন্ডিত নামে ওই ব্যক্তিদের বাড়ি।
10:46 PM May 27, 2024 IST | Susmita
ঘূর্ণিঝড়ের দুর্যোগের মধ্যে আগুনে পুড়ে ছাই চন্দ্রকোণার এক মজুরের বাড়ি
Advertisement

নিজস্ব প্রতিনিধি, চন্দ্রকোণা: রিমলের দুর্যোগে আগুন লেগে মাথা গোজার শেষ সম্বল টুকুও হারিয়ে মাথায় হাত শ্রীনগরের বাসুলিয়া গ্রামের এক পরিবারের। আগুনে পুড়ে ছারখার হয়ে গেল একটি বাড়ি ও বাড়িতে থাকা আসবাবপত্র। কান্নায় ভেঙে পড়ল অসহায় পরিবার পরিজনেরা। ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার চন্দ্রকোনা ১ নম্বর ব্লকের এক নম্বর লক্ষীপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের শ্রীনগর বাসুলিয়া গ্রামের নরেন্দ্রনাথ পন্ডিত ও সন্ন্যাসী পন্ডিত নামে ওই ব্যক্তিদের বাড়ি।

Advertisement

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, কোনরকম ক্ষেত মজুর করে,দিন চলে ওই পরিবারটির।বাড়ির এক মহিলা সবেমাত্র চড়িয়েছিল হাড়িতে রান্না।পিছন দিকে তাকিয়ে দেখেন বাড়ির উঠানে দাও দাও করে জ্বলছে আগুন। মহিলা চিৎকার চেঁচামেচি করতেই ছুটে আসে এলাকাবাসীরা।

Advertisement

 একদিকে চলছে রিমলের দুর্যোগ ও দমকা ঝড়ো হাওয়া। তার কারণে ছড়িয়েছে আগুন। এমনটাই মনে করছেন গ্রামবাসীরা ।পূড়ে ছারখার হয়ে গেল রান্নার সামগ্রী, ও তিনটি সাইকেল এবং বেশ কিছু রান্নার আসবাপাত্র। হঠাৎ চিতা বেচিতে গ্রামবাসীরা পৌঁছে সেখানে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে চেষ্টা করে। ততক্ষণে প্রায় বাড়ির মধ্যে থাকা বেশ কিছু জিনিসই পুড়ে গিয়েছে। নরেন্দ্রনাথ ও সন্ন্যাসী জানান, বাবা ও ছেলের ছোট্ট সংসারে ভাঙ্গা ছড়া মাটির বাড়ি তাও আবার বৃষ্টির জল পড়ে। এতেই থাকতে হয় আমাদেরকে না মিলেছে কোন সরকারি সহযোগিতা না মিলেছে কোন আবাস যোজনা বাড়ি। কোনরকম দিনমজুরের কাজ করে আহার জোগাতে হয় আমাদের।তাও আবার এই দুর্যোগে সমস্ত পুড়ে ছারখার, না খেয়ে থাকতে হবে আমাদের।

রান্না করার মত আর তেমন কিছুই নেই যেটা ছিল, সেটা আবার পুরে ছারখার হয়ে গিয়েছে। মাথা গোজার শেষ সম্বল টুকু হারিয়ে হারিয়ে নিসম্বল হয়ে মাথায় হাত পরিবারের সদস্যদের। ভরসা এখন ওপরওয়ালা।

Advertisement
Tags :
Advertisement