For the best experience, open
https://m.eimuhurte.com
on your mobile browser.
OthersWeb Stories খেলা ছবিঘরতৃণমূলে ফিরলেন অর্জুন সিংবাংলাদেশপ্রযুক্তি-বাণিজ্যদেশকলকাতাকৃষিকাজ বিনোদন শিক্ষা - কর্মসংস্থান শারদোৎসব লাইফস্টাইলরাশিফলরান্নাবান্না রাজ্য বিবিধ আন্তর্জাতিককরোনাএকুশে জুলাইআলোকপাতঅন্য খবর
Advertisement

মুখ্যমন্ত্রীর জঙ্গলমহল সফরের আগেই পূরণ হল দীর্ঘদিনের দাবি

মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে ঝাড়গ্রাম থেকে সন্ধ্যাবেলায় বেলপাহাড়ী যাওয়ার জন্য নতুন একটি বাস দেওয়া হচ্ছে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায়।
05:52 PM Feb 24, 2024 IST | Koushik Dey Sarkar
মুখ্যমন্ত্রীর জঙ্গলমহল সফরের আগেই পূরণ হল দীর্ঘদিনের দাবি
Courtesy - Facebook
Advertisement

নিজস্ব প্রতিনিধি: খুব শীঘ্রই জঙ্গলমহলের(Jungalmahal) ৪ জেলা সফরে যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়(Mamata Banerjee)। এই ৪ জেলা হল – পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, ঝাড়গ্রাম ও পশ্চিম মেদিনীপুর। দীর্ঘদিন ধরেই ঝাড়গ্রামকে(Jhargram) পৃথক জেলা হিসাবে গড়ে তোলার দাবি ছিল আদিবাসী সমাজের। কিন্তু সেই দাবিকে বিন্দুমাত্র গুরুত্ব দেয়নি বাংলার বুকে ৩৪ বছর ধরে রাজত্বপাট চালিয়ে যাওয়া বামফ্রন্ট সরকার। কিন্তু পরিবর্তনের পরে জঙ্গলমহলের বুকে শান্তি ফিরিয়ে এনে মুখ্যমন্ত্রী সেই দাবিকে মান্যতা দেওয়ার বিষয়ে উদ্যোগী হন। কার্যত তাঁর হাত ধরেই ২০১৭ সালের এপ্রিল মাসে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা থেকে পৃথক হয়ে বাংলার বুকে নয়া জেলা হিসাবে আত্মপ্রকাশ করে ঝাড়গ্রাম। এবার সেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত ধরেই দীর্ঘদিনের আরও এক দাবি পূরণ হতে চলেছে জঙ্গলমহলের বুকে। আর সেটাও মুখ্যমন্ত্রীর জঙ্গলমহল সফরের ঠিক আগেই। চালু হতে চলেছে ঝাড়গ্রাম থেকে সন্ধ্যাবেলায় বেলপাহাড়ী যাওয়ার বাস পরিষেবা। যা নিত্যযাত্রীদের দীর্ঘদিনের দাবি যেমন পূরণ করবে তেমনি পর্যটকদের ক্ষেত্রেও বেলপাহাড়ি(Belpahari) যাওয়ার সমস্যার সমাধান করবে।

Advertisement

হাওড়া স্টেশন থেকে স্টিল এক্সপ্রেস(Steel Express) ৫টা ২৫ মিনিটে ছাড়ে। খড়গপুর স্টেশনে সন্ধ্যা ৭টা নাগাদ ট্রেনটি পৌঁছয়। সাড়ে ৭টার সময় ট্রেনটি গিয়ে পৌঁছায় ঝাড়গ্রাম স্টেশনে। কিন্তু এতদিন ওই ট্রেনে কলকাতার দিক থেকে কেউ ঝাড়গ্রাম গিয়ে আর বেলপাহাড়ী যাওয়ার বাস পেতেন না। তার আগেই ৬টা ৫০মিনিটে বেলপাহাড়ী যাওয়ার শেষ বাস ঝাড়গ্রাম শহর থেকে ছেড়ে বেড়িয়ে যেত। এর দরুণ সব থেকে বেশি সমস্যায় পড়তেন নিত্যযাত্রীরা। সেই কারণেই জেলা প্রশাসনের কাছে দীর্ঘদিন ধরেই দাবি জানানো হচ্ছিল, স্টিল এক্সপ্রেসের যাত্রীদের ঝাড়গ্রাম থেকে বেলপাহাড়ী নিয়ে যাওয়ার জন্য কোনও বাসের ব্যবস্থা করা হোক। গত পরশু অর্থাৎ ২২ ফেব্রুয়ারি নবান্নের সভাঘরে জঙ্গলমহলের নানা আদিবাসী সংগঠনের সঙ্গে বৈঠকে বসেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। সেখানে বেলপাহাড়ীর এই বাসের সমস্যার কথাও আলোচনায় উঠে আসে। এরপরেই মুখ্যমন্ত্রী নির্দেশ দেন, জেলা প্রশাসনকে দ্রুত এই সমস্যার সমাধান করতে হবে। সেই নির্দেশের পরে পরেই এদিন অর্থাৎ ২৪ ফেব্রুয়ারি ঝাড়গ্রাম জেলা প্রশাসনের তরফে জানিয়ে দেওয়া হল যে, স্টিল এক্সপ্রেসের যাত্রীদের ঝাড়গ্রাম থেকে বেলপাহাড়ী নিয়ে যাওয়ার জন্য ঝাড়গ্রাম থেকে সন্ধ্যাবেলায় বাস পরিষেবা চালু করা হচ্ছে।

Advertisement

জানা গিয়েছে, এতদিন পর্যন্ত সন্ধ্যা ৬টা ৮০ মিনিটে ঝাড়গ্রাম শহর থেকে বেলপাহাড়ী যাওয়ার শেষ বাস বেড়িয়ে যাওয়ার পরে কাউকে ঝাড়গ্রাম থেকে বেলপাহাড়ী যেতে হলে বাড়তি টাকা খরচ করে গাড়ি ভাড়া করে কিংবা বাইকে চেপে বেলপাহাড়ী যেতে হতো। কিন্তু এবার সেই ছবি বদলে যেতে চলেছে মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে। ঝাড়গ্রাম থেকে সন্ধ্যাবেলায় বেলপাহাড়ী যাওয়ার জন্য ৬টা ৫০মিনিটের যে বাস ছিল, সেটা যেমন থাকবে তেমনি নতুন একটি বাস(New Bus Service) দেওয়া হচ্ছে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায়। নিত্যদিন এই বাস পরিষেবা মিলবে। স্টিল এক্সপ্রেসের যাত্রীদের নিয়েই বাস ছাড়বে। স্টিল এক্সপ্রেস না আসা পর্যন্ত বাসটি অপেক্ষা করবে। এর ফলে দহিজুড়ি, বিনপুর, শিলদা সহ কয়েকশো গ্রামের মানুষ উপকৃত হবেন। এই বাস চালুর ফলে নিত্যযাত্রীদের পাশাপাশি পর্যটকেরাও উপকৃত হবেন। দিনের বেলায় অফিস করে বিকালের ট্রেন ধরে এবার অনেকেই কলকাতার দিক থেকে ঝাড়গ্রাম হয়ে বেলপাহাড়ী চলে যেতে পারবেন।

Advertisement
Tags :
Advertisement