For the best experience, open
https://m.eimuhurte.com
on your mobile browser.
OthersWeb Stories খেলা ছবিঘরতৃণমূলে ফিরলেন অর্জুন সিংবাংলাদেশপ্রযুক্তি-বাণিজ্যদেশকলকাতাকৃষিকাজ বিনোদন শিক্ষা - কর্মসংস্থান শারদোৎসব লাইফস্টাইলরাশিফলরান্নাবান্না রাজ্য বিবিধ আন্তর্জাতিককরোনাএকুশে জুলাইআলোকপাতঅন্য খবর
Advertisement

নিরাপত্তা চেয়ে মুখ্যমন্ত্রীর শরণাপন্ন আরাবুল

নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন ভাঙড়ের প্রাক্তন বিধায়ক তথা তৃণমূলের নেতা আরাবুল ইসলাম। তাই নিরাপত্তা চেয়ে মুখ্যমন্ত্রীর দ্বারস্থ হলেন তিনি।
05:19 PM Dec 30, 2023 IST | Koushik Dey Sarkar
নিরাপত্তা চেয়ে মুখ্যমন্ত্রীর শরণাপন্ন আরাবুল
Courtesy - Google and Facebook
Advertisement

নিজস্ব প্রতিনিধি: তিনি একসময় ছিলেন ভাঙড়ের(Bhangar) শেষকথা। তাঁর দাপটে বাঘে-গরুতে এক ঘাটে জল খেত। এখন তিনিই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের(Mamata Banerjee) শরণাপন্ন হলেন নিরাপত্তা চেয়ে। ভাগ্যের কী অদ্ভূত পরিহাস। নজরে কলকাতার কান ঘেঁষে থাকা দক্ষিণ ২৪ পরগনা(South 24 Pargana) জেলার ভাঙড়ের প্রাক্তন বিধায়ক(Former MLA) তথা তৃণমূলের নেতা(TMC Leader) আরাবুল ইসলাম(Aarabul Islam)। তিনি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। তাই মুখ্যমন্ত্রীর কাছে নিরাপত্তা চেয়ে আবেদন করেছেন। সঙ্গে এটাও জানিয়েছেন, পুলিশ-প্রশাসন ও জেলার দলীয় নেতৃত্বকে এ বিষয়ে জানিয়েও কোনও কাজ হয়নি। তাই বাধ্য হয়েই মুখ্যমন্ত্রীকে জানিয়েছেন তিনি। এটাও বলেছেন, পঞ্চায়েতে ভোটপর্বের সময় থেকেই তিনি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। তাঁর এলাকাতেই আইএসএফের কর্মীরা থেকে থেকেই তাঁকে আটকে রাখছে, ঘিরে ধরে বিক্ষোভ দেখাচ্ছে। ভাঙড়ের বর্তমান তৃণমূল নেতৃত্ব সেই জায়গায় কিছুই করছে না। তাঁরা কার্যত হাতগুটিয়ে বসে আছে। এদিন অর্থাৎ শনিবার সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বেশ কিছু কথা বলেছেন আরাবুল। সবটাই তাঁর নিজের ক্ষোভ নিয়ে।  

Advertisement

কী বলেছেন আরাবুল? জানিয়েছেন, ‘আমাদের যে কোনও সময় প্রাণহানির আশঙ্কা আছে। হুট করে আমার তিনজন সিকিউরিটিকে চেঞ্জ করে দেওয়া হল। কোনও কারণ নেই। আমরা বারবার প্রশাসনকে জানাচ্ছি। প্রশাসন কতটা নিরাপত্তা আমাদের দিতে পারে সেটা প্রশাসন জানে। সেটা নিয়ে আর কিছু বলব না। আমি রাজ্য নেতৃত্ব থেকে শুরু করে আমাদের জেলা নেতৃত্ব, আমাদের অবজারভারকে বারবার বলেছি। কিন্তু কিছুতেই কিছু হয়নি। এখন যাঁরা নতুন তাঁরা তো ভাঙড়ের ভৌগলিক দিকটাও ভাল বোঝে না। কোথায় সমস্যা হতে পারে, ঝামেলা হতে পারে, গুলি চলতে পারে, আরাবুলের ওপর আক্রমণ হতে পারে সেটা ওরা বোঝে না। আমার কিছু ছেলে আছে আমার সঙ্গে। তাঁদের আমি রেখেছি আমার নিরাপত্তার জন্য। মাননীয় মুখ্যমন্ত্রীর কাছে আমার আবেদন আমাদের নিরাপত্তার বিষয়টি দেখুন।’ তবে প্রশ্ন উঠছে, যে ভাঙড়ের বুকে একসময় তিনিই শেষ কথা হয়ে উঠেছিলেন, সেখানে আজ কেন তাঁকেই নিরাপত্তা নিয়ে ভাবতে হচ্ছে? কেনই বা নিরাপত্তা চেয়ে মুখ্যমন্ত্রীর দ্বারস্থ হতে হচ্ছে!

Advertisement

Advertisement
Tags :
Advertisement