For the best experience, open
https://m.eimuhurte.com
on your mobile browser.
OthersWeb Stories খেলা ছবিঘরতৃণমূলে ফিরলেন অর্জুন সিংবাংলাদেশপ্রযুক্তি-বাণিজ্যদেশকলকাতাকৃষিকাজ বিনোদন শিক্ষা - কর্মসংস্থান শারদোৎসব লাইফস্টাইলরাশিফলরান্নাবান্না রাজ্য বিবিধ আন্তর্জাতিককরোনাএকুশে জুলাইআলোকপাতঅন্য খবর
Advertisement

বৃষ্টি ঘাটতির মুখে দক্ষিণবঙ্গ, ধাক্কা খাচ্ছে কৃষিকাজ

দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে এখন কোথাও ৪০ শতাংশ, কোথাও ৩৫ শতাংশ আবার কোথাও ৩০ শতাংশ বৃষ্টি ঘাটতি দেখা দিয়েছে। ধাক্কা খাচ্ছে কৃষিকাজও।
12:08 PM Jun 20, 2024 IST | Koushik Dey Sarkar
বৃষ্টি ঘাটতির মুখে দক্ষিণবঙ্গ  ধাক্কা খাচ্ছে কৃষিকাজ
Courtesy - Google
Advertisement

নিজস্ব প্রতিনিধি: জুন মাসের তৃতীয় সপ্তাহ পার হতে চলল। অথচ এখনও দক্ষিণবঙ্গে(South Bengal) প্রাক বর্ষার বৃষ্টিরও(Pre Monsoon Rain) দেখা নেই। অথচ উত্তরবঙ্গ বর্ষার বৃষ্টিতে ভেসে যাচ্ছে। অন্যান্য বছর জুন মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে ধারাবাহিকভাবে বৃষ্টি শুরু হয়ে যায় দক্ষিণবঙ্গের বুকে। মূলত তা প্রাক বর্ষার বৃষ্টি। অথচ এবার সেই প্রাক বর্ষার বৃষ্টিরই দেখা নেই। আর সেই কারণেই এবার কবে বর্ষা পা রাখবে দক্ষিণবঙ্গের বুকে সেই আশায় আকাশের দিকে তাকিয়ে আছেন চাষিরা। বৃষ্টির অভাবে দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে কৃষিকাজ(Farming) ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। বিশেষ করে ধান, পাট আর সবজির চাষে ব্যাপক প্রভাব পড়ছে। দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে এখন কোথাও ৪০ শতাংশ, কোথাও ৩৫ শতাংশ আবার কোথাও ৩০ শতাংশ বৃষ্টি ঘাটতি(Rain Shortage) দেখা দিয়েছে। গতবছরও বৃষ্টির ঘাটতি দেখা গিয়েছিল এই সময় দক্ষিণবঙ্গের বুকে। এবারেও একই ছবি। তবে বর্ষার বৃষ্টি শুরু হলে চাষিদের সমস্যা মিটবে বলে আশ্বাস দিচ্ছেন কৃষি বিশেষজ্ঞরা।

Advertisement

প্রতি বছর চৈত্রের শেষ দিকে ও বৈশাখ মাসে মাঝেমধ্যে কালবৈশাখীর দেখা মিলত। জৈষ্ঠ্য মাসেও কয়েক পশলা ভালোই বৃষ্টি হয়। কিন্তু এবার দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে একেবারেই বৃষ্টির দেখা নেই। ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে সপ্তাহ দুয়েক আগে বৃষ্টিতে জমিতে জলের সমস্যা কিছুটা মিটেছিল। কিন্তু তারপর আবার টানা রোদ শুরু হয়। দীর্ঘদিন বৃষ্টি না হওয়ায় মাঠের জমি শুকনো হয়ে ফেটে যাচ্ছে। নিয়মিত জলসেচ দিয়েও মাটি আর্দ্র রাখতে পারছেন না চাষিরা। ফলে ব্যাপক সমস্যা হচ্ছে পাট ও সবজি চাষে। চাষের এই ক্ষতির কারণে ইতিমধ্যে বাজারে সবজির দাম চড়া হতে শুরু করেছে। এই তীব্র দাবদাহে টানা জলসেচ দিয়ে ফসল বাঁচিয়ে রাখাটাই এখন প্রধান চ্যালেঞ্জ চাষিদের। তাই অনেকেই অপরিণত অবস্থায় সবজি তুলে বাজারে নিয়ে আসছেন। রাজ্যের কৃষি দফতরের আধিকারিকরা বিভিন্ন এলাকায় চাষের অবস্থা খতিয়ে দেখছেন। তাঁরা চাষিদের সঙ্গে কথা বলছেন। তবে আবহাওয়াবিদদের দাবি, বর্ষা দক্ষিণবঙ্গের দোরগোড়াতে চলেই এসেছে। শুধু সময়ের অপেক্ষা। যে কোনও সময়ে নামবে বর্ষার বৃষ্টি। তখন চাষের জন্য জলের অভাব হবে না।

Advertisement

উত্তরবঙ্গে যখন বর্ষার বৃষ্টি তাণ্ডব চালাচ্ছে, তখন দক্ষিণবঙ্গে বর্ষার আসার দিন পিছিয়েই চলেছে। আবহাওয়া দফতরের শেষ পূর্বাভাস অনুযায়ী, শুক্রবার দক্ষিণবঙ্গে বর্ষা ঢোকার কথা ছিল। তার আগে দু’এক দিন প্রাক্‌‌-বর্ষার বৃষ্টি নামার কথা ছিল দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে। মঙ্গলবার থেকে সেই বৃষ্টি না নামলেও আকাশ জুড়ে ভিড় করেছে মেঘ। কিন্তু তাতে প্রাণ আরও ওষ্ঠাগত হয়েছে দক্ষিণবঙ্গের মানুষের। এর আগে গরমের পাশাপাশি অতিরিক্ত আর্দ্রতায় অসুস্থ হয়ে পড়তে শুরু করেছিলেন মানুষ। এ বার মেঘলা আকাশের দৌলতে তার সঙ্গে জুড়েছে গুমোট ভাব। ফলে অস্বস্তি কমেনি। বরং বেড়েইছে। বৃহস্পতিবার সকালে বর্ষার আগমনবার্তা নিয়ে নতুন করে কিছু জানায়নি আবহাওয়া দফতর। শুধু জানিয়েছে, আগামী কয়েক দিনে তাপমাত্রার পারদ কিছুটা নামতে পারে। আপাতত সেটুকুই যা স্বস্তির খবর।

Advertisement
Tags :
Advertisement