For the best experience, open
https://m.eimuhurte.com
on your mobile browser.
OthersWeb Stories খেলা ছবিঘরতৃণমূলে ফিরলেন অর্জুন সিংবাংলাদেশপ্রযুক্তি-বাণিজ্যদেশকলকাতাকৃষিকাজ বিনোদন শিক্ষা - কর্মসংস্থান শারদোৎসব লাইফস্টাইলরাশিফলরান্নাবান্না রাজ্য বিবিধ আন্তর্জাতিককরোনাএকুশে জুলাইআলোকপাতঅন্য খবর
Advertisement

মমতার দাবিকেই মান্যতা দিয়ে বিজেপির মুখ পোড়ালেন মালব্য

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দাবি ও আশঙ্কা যে অমূলক নয় সেটা এদিন নিজে ট্যুইট করে বিজেপির মুখ পোড়ালেন দলেরই আইটি সেলের ইনচার্জ অমিত মালব্য।
05:43 PM Jun 15, 2024 IST | Koushik Dey Sarkar
মমতার দাবিকেই মান্যতা দিয়ে বিজেপির মুখ পোড়ালেন মালব্য
Courtesy - Twitter, Facebook and Google
Advertisement

নিজস্ব প্রতিনিধি: কয়েকদিন আগেই নবান্নে(Nabanna) প্রশাসনিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়(Mamata Banerjee) দাবি করেছিলেন, রাজ্যের আমলাকুলের(Bureaucrat) কেউ কেউ ভিতরের খবর বাইরে পাচার করছেন। রাজ্য সরকারের খুব Confidential খবর মিডিয়া বা বিরোধী পক্ষের হাতে তুলে দিচ্ছেন। রাজ্য সরকারের অজ্ঞাতেই সেই সব খবর চলে যাচ্ছে নবান্নের বাইরে। মুখ্যমন্ত্রীর সেই দাবি ও আশঙ্কা যে অমূলক নয় সেটা এদিন নিজে ট্যুইট করে বিজেপির(BJP) মুখ পোড়ালেন দলেরই আইটি সেলের ইনচার্জ অমিত মালব্য(Amit Malabya)। তিনি এদিন তাঁর ট্যুইটে শুধু মমতার আশঙ্কাকেই সত্যি বলে মেনে নিয়েছেন তাই নয়, কার্যত বুঝিয়ে দিয়েছেন, বাংলার আমলাতন্ত্রের নিয়ন্ত্রণ চলে এসেছে বিজেপির হাতে। খুব শীঘ্রই সরকারের নিয়ন্ত্রণও চলে আসবে তাঁদের হাতে। আর তারপরেই গদি ওল্টানো হবে নবান্নে। আর সেটা ২০২৬ সালের রাজ্য বিধানসভা নির্বাচনের অনেক আগেই। যদিও অমিতের ট্যুইটের পাল্টা তোপ দেগেছেন তৃণমূলের(TMC) নেতা শান্তনু সেন। তিনি জানিয়েছেন, ‘অমিত মালব্যের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ রয়েছে। অভিযোগ করেছেন তাঁরই দলের এক নেতা। ওই নেতা বলেছেন, পাঁচতারা হোটেলে অমিত মালব্য মহিলা সাপ্লাই দিতে হত।

Advertisement

অমিত তাঁর ট্যুইটে জানিয়েছেন, তৃণমূলের রাজ্য স্তরের নেতারা বিজেপির সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলেছেন। একইসঙ্গে বাংলার আমলাকূলের অনেকেই তাঁদের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলেছেন ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রতিটি পদক্ষেপের বিষয়ে বিজেপিকে জানিয়ে চলেছেন। অমিতের দাবি, ‘আমলারা নিয়মিত মমতার পদক্ষেপের বিষয়ে আমাদের জানাচ্ছেন। ভোটের ফলের পর একাধিক বৈঠক করেছেন মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়। ভয় দেখাতেই এই সব বৈঠকগুলি করা হয়েছে। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য আমলাদের সঙ্গে ও বণিকসভার সঙ্গে বৈঠক। ওই বৈঠকে মোবাইল ফোন ভিতরে নিয়ে যাওয়ার অনুমতি ছিল না। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পায়ের তলার মাটি হারাচ্ছেন আর সেটা তিনি খুব ভালো মতো জানেন। উনি জানেন পশ্চিমবঙ্গের পুরো আমলাতন্ত্রের খবর ফাঁস হয়ে যাচ্ছে। পশ্চিমবঙ্গ ক্যাডারের আমলারা বিজেপি নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন এবং তাঁর গতিবিধির খবর দিচ্ছেন। একজন আমলা যেমন বলেছেন, আমি কখনও ভাবিনি যে জ্যোতিবাবু ক্ষমতাচ্যুত হবেন। কিন্তু হয়েছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের ক্ষেত্রেও শুধু সময়ের অপেক্ষা। এইসব বৈঠক করে মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় হারানো জমি পুনরুদ্ধার করতে পারবেন না।

Advertisement

Advertisement
Tags :
Advertisement