For the best experience, open
https://m.eimuhurte.com
on your mobile browser.
OthersWeb Stories খেলা ছবিঘরতৃণমূলে ফিরলেন অর্জুন সিংবাংলাদেশপ্রযুক্তি-বাণিজ্যদেশকলকাতাকৃষিকাজ বিনোদন শিক্ষা - কর্মসংস্থান শারদোৎসব লাইফস্টাইলরাশিফলরান্নাবান্না রাজ্য বিবিধ আন্তর্জাতিককরোনাএকুশে জুলাইআলোকপাতঅন্য খবর
Advertisement

ভরাডুবির দায় নিজের কাঁধে নিয়ে ইস্তফার ইচ্ছাপ্রকাশ উত্তরপ্রদেশ বিজেপি সভাপতির

12:04 AM Jun 07, 2024 IST | Sundeep
ভরাডুবির দায় নিজের কাঁধে নিয়ে ইস্তফার ইচ্ছাপ্রকাশ উত্তরপ্রদেশ বিজেপি সভাপতির
Advertisement

নিজস্ব প্রতিনিধি, লখনউ: রাম রাজ্য উত্তরপ্রদেশে সদ্য সমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে কার্যত ভূমিশয্যা নিয়েছে বিজেপি। রাজ্যের ৮০ লোকসভা আসনের মধ্যে মাত্র ৩৩ আসনে জিতেছে পদ্ম শিবিরের প্রার্থীরা। উল্টোদিকে ৩৭ আসন পেয়েছে অখিলেশ যাদবের সমাজবাদী পার্টি। আর রামরাজ্যে গতবারের তুলনায় এক ধাক্কায় ২৯ আসন কমেছে। আর ওই ধাক্কাতে সরকার গড়ার মতো একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা থেকে অনেক দূরে থেমে যেতে হয়েছে কেন্দ্রের ১০ বছরের শাসকদলকে। উত্তরপ্রদেশে দলের এমন ব্যর্থতার দায় ভার কার তা নিয়ে গত মঙ্গলবার থেকেই শুরু হয়েছে নানা চর্চা। আর সেই চর্চার মধ্যেই ব্যর্থতার দায়ভার নিজের কাঁধে তুলে নিয়ে ইস্তফা দেওয়ার ইচ্ছাপ্রকাশ করলেন উত্তরপ্রদেশের বিজেপি সভাপতি ভূপেন্দ্র সিং চৌধুরী। বৃ্হস্পতিবারই তিনি দলের সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডার কাছে ইস্তফা দেওয়ার ইচ্ছাপ্রকাশ করেছেন। 

Advertisement

সূত্রের খবর, মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে চাপে রাখতেই গত বছর উত্তরপ্রদেশে দলের সভাপতি পদে ভূপেন্দ্র সিং চৌধুরীকে বসিয়েছিলেন অমিত শাহ। এমনকি সদ্য সমাপ্ত নির্বাচনেও বিজেপির প্রার্থী বাছাইয়ের ক্ষেত্রে মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের সুপারিশ খারিজ করে দিয়েছিল বিজেপির কেন্দ্রীয় নির্বাচনী সমিতি। মূলত অমিত শাহ এবং ভূপেন্দ্র চৌধুরীই প্রার্থী বাছাইয়ের দায়িত্বে ছিলেন। আর তা ভাল চোখে দেখেননি যোগী আদিত্যনাথ। বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্বও সাধারণ ভোটারদের কাছে প্রকট হয়ে পড়েছিল।

Advertisement

লোকসভা নির্বাচনে ভরাডুবির পরেই যোগী অনুগামী নেতারা ভূপেন্দ্র সিং চৌধুরী ও অমিত শাহকে কাঠগড়ায় তুলেছিলেন। রাম রাজ্যে বিজেপির অন্দরে রাজ্য সভাপতি পদে শাহের ঘনিষ্ঠ ভূপেন্দ্রর ইস্তফার দাবিও ক্রমশ জোরালো হয়ে উঠেছিল। পরিস্থিতি বেগতিক বুঝতে পেরেই সভাপতি পদে ইস্তফা দেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন ভূপেন্দ্র চৌধুরী। উল্লেখ্য, মহারাষ্ট্রেও মুখ থুবড়ে পড়েছে বিজেপি। আর দলের ওই বিপর্যয়ের দায় নিজের কাঁধে তুলে নিয়ে ইস্তফা দেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন উপমুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবীস।

Advertisement
Tags :
Advertisement