For the best experience, open
https://m.eimuhurte.com
on your mobile browser.
OthersWeb Stories খেলা ছবিঘরতৃণমূলে ফিরলেন অর্জুন সিংবাংলাদেশপ্রযুক্তি-বাণিজ্যদেশকলকাতাকৃষিকাজ বিনোদন শিক্ষা - কর্মসংস্থান শারদোৎসব লাইফস্টাইলরাশিফলরান্নাবান্না রাজ্য বিবিধ আন্তর্জাতিককরোনাএকুশে জুলাইআলোকপাতঅন্য খবর
Advertisement

রাজ্যে কত বৈধ নার্সিং কলেজ, তালিকা প্রকাশের নির্দেশ হাইকোর্টের

রাজ্যে থাকা বৈধ নার্সিং কলেজগুলির তালিকা প্রকাশের নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট। বৈধ কলেজগুলির বিবরণ দিয়ে বিজ্ঞপ্তি জারিরও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
11:53 AM Dec 09, 2023 IST | Koushik Dey Sarkar
রাজ্যে কত বৈধ নার্সিং কলেজ  তালিকা প্রকাশের নির্দেশ হাইকোর্টের
Courtesy - Google
Advertisement

নিজস্ব প্রতিনিধি: রাজ্যে মাথাচাড়া দিয়েছে বেআইনি নার্সিং কলেজ(Private Nursing College)। তার জেরে এবার বৈধ নার্সিং কলেজগুলির তালিকা প্রকাশ করার নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট(Calcutta High Court)। বাঁকুড়ার(Bankura) একটি বেআইনি নার্সিং কলেজ সংক্রান্ত মামলায় কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি টি এস শিবজ্ঞানম ও বিচারপতি হিরণ্ময় ভট্টাচার্যের ডিভিশন বেঞ্চের নির্দেশ, ২০২৪ সালের শিক্ষাবর্ষ শুরুর আগে রাজ্য নার্সিং কাউন্সিল(West Bengal Nursing Council) অনুমোদিত বৈধ কলেজগুলির তালিকা প্রকাশ করতে হবে কাউন্সিলকে। পড়ুয়ারা যাতে প্রতারিত না হন, সেকারণে আদালত নির্দেশে আরও জানিয়েছে, কলেজগুলির তালিকা কাউন্সিলের ওয়েবসাইটে প্রকাশের পাশাপাশি বহুলভাবে প্রচার করতে হবে। বৈধ কলেজগুলির বিবরণ দিয়ে ইংরেজি ও বাংলা দৈনিকে বিজ্ঞপ্তি জারিরও(Notice) নির্দেশ দিয়েছে কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ।

Advertisement

জানা গিয়েছে, বাঁকুড়ার একটি অনুমোদনহীন নার্সিং কলেজকে কেন্দ্র করে ঘটনার সূত্রপাত্র। মামলাকারীর আইনজীবী রামেশ্বর সিনহার অভিযোগ, ছাত্র ভর্তির জন্য বড় বড় করে বিজ্ঞাপন দিয়েছিল বাঁকুড়ার C N K College and School of Nursing। তাদের দাবি ছিল, প্রতিষ্ঠানটি কেন্দ্রীয় সরকার অনুমোদিত। বিজ্ঞাপন দেখে বহু পড়ুয়া সেখানে ভর্তি হন। কিন্তু পরবর্তীতে দেখা যায়, ওই প্রতিষ্ঠানটির কোনও বৈধতা নেই। অভিযোগ- এরপর Indian Medical Council, রাজ্য নার্সিং কাউন্সিল, স্বাস্থ্যভবন থেকে শুরু করে জেলাশাসক, বাঁকুড়া সদর থানা, জেলা স্বাস্থ্যবিভাগে অভিযোগ জানিয়েও কোনও সুরাহা হয়নি।

Advertisement

তখন কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন ৮ জন পড়ুয়া। তাঁদের অভিযোগ ছিল, অনুমোদন না থাকা সত্ত্বেও Fees বাবদ নেওয়া অর্থ এবং সব Original Certificate আটকে রেখেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। একথা শোনার পরই রীতিমতো ক্ষোভ প্রকাশ করে ডিরেক্টদের গ্রেফতারির নির্দেশ দেয় কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ। আপাতত ওই পড়ুয়াদের সার্টিফিকেট ফেরত ও ক্ষতিপূরণের দাবি জানিয়েছেন মামলাকারীর আইনজীবী।

Advertisement
Tags :
Advertisement