For the best experience, open
https://m.eimuhurte.com
on your mobile browser.
OthersWeb Stories খেলা ছবিঘরতৃণমূলে ফিরলেন অর্জুন সিংবাংলাদেশপ্রযুক্তি-বাণিজ্যদেশকলকাতাকৃষিকাজ বিনোদন শিক্ষা - কর্মসংস্থান শারদোৎসব লাইফস্টাইলরাশিফলরান্নাবান্না রাজ্য বিবিধ আন্তর্জাতিককরোনাএকুশে জুলাইআলোকপাতঅন্য খবর
Advertisement

স্ত্রীর দ্বারা অত্যাচারিত, অবশেষে ডিভোর্স পেলেন তারকা শেফ কুণাল কাপুর

মামলার পূর্বোক্ত তথ্যের ভিত্তিতে বলা হচ্ছে যে, আপীলকারীর স্বামীর প্রতি অভিযুক্ত স্ত্রির আচরণ অসহনীয় ছিল, তাঁর প্রতি স্ত্রীর মর্যাদা ও সহানুভূতি বর্জিত ছিল। যখন এক পত্নীর স্বভাব তাঁর স্বামীর উপর অযাচিত হয়, তাহলে এই বৈবাহিক সম্পর্ক না থাকাই শ্রেয়, জানিয়েছে আদালত।
11:39 AM Apr 03, 2024 IST | Sushmitaa
স্ত্রীর দ্বারা অত্যাচারিত  অবশেষে ডিভোর্স পেলেন তারকা শেফ কুণাল কাপুর
Advertisement

নিজস্ব প্রতিনিধি: বিনোদন মহলের নানা খুঁটিনাটি বিষয় চিরকাল খবরের শিরোনামে থাকে। আর তারকাদের ব্যক্তিগত জীবনের নানা খবর নিয়েও ভক্তরা সবসময় ওত পেতে থাকে। তাঁদের কৌতুহল যেন তুঙ্গে ওঠে। কার সংসার ভাঙল, কে সংসার নতুন করে শুরু করল, সব খবরই বিনোদনের শ্রেষ্ঠ মাধ্যম। অবশেষে স্ত্রীর অশান্তির হাত থেকে মুক্তি পেলেন সেলিব্রিটি শেফ কুনাল কাপুর। কেননা মঙ্গলবার দিল্লি হাইকোোর্ট স্ত্রীর কাছ থেকে নিষ্ঠুরতার সম্মুখীন হওয়ার কারণে কুণাল কাপুরের বিবাহবিচ্ছেদ আবেদন মঞ্জুর করেছে। আদালত শিকার করেছে যে, কুণালের স্ত্রীর আচরণের যথেষ্ট মর্যাদা এবং সহানুভূতির অভাব ছিল। স্ত্রীর হাতে দিনের পর দিন অত্যাচারিত হয়েছেন তিনি। এই সম্পর্কে থাকতে না চেয়েই আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন সেলিব্রিটি শেফ কুণাল কাপুর (Celebrity Chef Kunal Kapur)। অবশেষে পেলেন বিচার। স্ত্রীর কাছে অত্যাচারের কথা মেনেই শেফ ও তাঁর স্ত্রীর ডিভোর্স মঞ্জুর করেছে দিল্লি হাইকোর্ট।

Advertisement

অভিযোগ, তাঁকে দিনের পর দিন অপমান করেছেন। আইন অনুসারে, যদি কেউ তাঁর স্ত্রীর বিরুদ্ধে বেপরোয়া, মানহানিকর এবং অপমানজনক অভিযোগ তোলে, তখন তা নিষ্ঠুরতার সমান হয়। কুণালও তাঁর স্ত্রী বিরুদ্ধে নানারকম নিষ্ঠুরতার অভিযোগ তুলেছিলেন। এমনকি ২০১৬ সালেও মাস্টার শেফের শোয়ে গিয়ে উৎপাত করে এসেছে কুণালের স্ত্রী। অবশেষে একাধিকবার পুলিশে আবেদান জানিয়েও কোন লাভ হয়নি। এই দম্পতি ২০০৮ সালে বিয়ে করেন আর ২০১২ সালে তাঁদের একটি পুত্রসন্তানের জন্ম হয়। তখন থেকেই শুরু হয় অশান্তি। টেলিভিশন শো মাস্টারশেফ ইন্ডিয়ার বিচারক কুণাল কাপুরের অভিযোগ ছিল যে, তাঁর স্ত্রী তাঁর বাবা-মাকে অসম্মান করত। মামলার পূর্বোক্ত তথ্যের ভিত্তিতে বলা হচ্ছে যে, আপীলকারীর স্বামীর প্রতি অভিযুক্ত স্ত্রির আচরণ অসহনীয় ছিল, তাঁর প্রতি স্ত্রীর মর্যাদা ও সহানুভূতি বর্জিত ছিল। যখন এক পত্নীর স্বভাব তাঁর স্বামীর উপর অযাচিত হয়, তাহলে এই বৈবাহিক সম্পর্ক না থাকাই শ্রেয়, জানিয়েছে আদালত।

Advertisement

তাই তাঁদের একসঙ্গে এক ছাদের তলায় দিনের পর দিন থাকাটা খুব বিসাক্ত। এদিকে কুণাল কাপুরের প্রাক্তন স্ত্রী বলছেন যে, তিনি সর্বদা তাঁর স্বামীর সঙ্গে প্রেমে থাকার চেষ্টা করেছেন। বিবাহবিচ্ছেদের জন্য তাঁর স্বামী মিথ্যে গল্প বানাচ্ছেন। আদালত বলছে যে, প্রতিটি বিবাহে মতবিরোধ স্বাভাবিক, যখন এই দ্বন্দ্বগুলি একজন স্ত্রীর প্রতি অসম্মান এবং অবজ্ঞার দিকে নিয়ে যায়, তখন একটি বিবাহ তার পবিত্রতা হারায়। বিয়ের দুই বছরের মধ্যে, কুণাল কাপুর নিজেকে একজন সেলিব্রিটি শেফ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছেন, যা তার কঠোর পরিশ্রম এবং দৃঢ়তার প্রতিফলন। দেশের গণ্যমান্য শেফদের মধ্যে একজন কুণাল। বিখ্যাত কুকিং রিয়েলিটি শো ‘মাস্টারশেফ ইন্ডিয়া’র বিচারক ছিলেন তিনি। 

Advertisement
Tags :
Advertisement