For the best experience, open
https://m.eimuhurte.com
on your mobile browser.
OthersWeb Stories খেলা ছবিঘরতৃণমূলে ফিরলেন অর্জুন সিংবাংলাদেশপ্রযুক্তি-বাণিজ্যদেশকলকাতাকৃষিকাজ বিনোদন শিক্ষা - কর্মসংস্থান শারদোৎসব লাইফস্টাইলরাশিফলরান্নাবান্না রাজ্য বিবিধ আন্তর্জাতিককরোনাএকুশে জুলাইআলোকপাতঅন্য খবর
Advertisement

'ও আমার ছেলে, মারতেই পারি', ছাত্রকে পেটানোর ভিডিও নিয়ে মুখ খুললেন গায়ক

স্তাদ জি আপনি কেন এমন করছেন?' উত্তরে আমি বললাম, আমি তার শিক্ষক। আমি তার বাবার মতো। আমার অভিভাবক এবং আমি স্বীকার করেছি যে আমি তাকে বকাঝকা করেছি।
01:29 PM Feb 01, 2024 IST | Sushmitaa
 ও আমার ছেলে  মারতেই পারি   ছাত্রকে পেটানোর ভিডিও নিয়ে মুখ খুললেন গায়ক
Advertisement

নিজস্ব প্রতিনিধি: দিন কয়েক আগেই প্রখ্যাত সঙ্গীতশিল্পী রাহাত ফতেহ আলি খানের একটি ভিডিও ঝড়ের বেগে ভাইরাল হয়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। যেখানে দেখা গিয়েছিল, সঙ্গীতশিল্পী তাঁর শিষ্য বা কর্মী কে জুতো দিয়ে পেটাচ্ছে। বিষয়টি ঝড়ের বেগে ভাইরাল হওয়ার পরেই গায়কের এরূপ আচরণ নিয়ে শুরু হয় তুমুল সমালোচনা। কিন্তু এই ভিডিওটি নিয়ে নির্যাতিত শিষ্যটি বলেছিলেন, সবার ভুল ধারণা রয়েছে। কখনই তাঁকে রাহাত ফতেহ আলি খান, বিরূপ চিন্তাভাবনা নিয়ে মারেননি। বরং এই কারণে শিষ্যর কাছে রাহাত ফতেহ আলি খান ক্ষমা চেয়েছেন। এই ঘটনার পর এতদিন মুখ বন্ধ রাখলেও সম্প্রতি সকলের সামনে ক্ষমা চাইলেন কিংবদন্তি কাওয়ালি গায়ক। আসলে শিল্পীরা জন্মায়ই ভক্তদের জন্যে, কিন্তু এমন আচরণ গায়কের ভক্তদের উপর স্বাভাবিকভাবেই বিরূপ প্রতিক্রিয়া পড়তে পারে। তাই তড়িঘড়ি ক্ষমা চাইলেন গায়ক। রাহাত ফতেহ আলি খান শুধু ভারতে নয়, পাকিস্তানেও অন্যতম জনপ্রিয় গায়ক।

Advertisement

গুণী এই শিল্পী বহু বছর ধরে বেশ কিছু হিট গানে নিজের কণ্ঠ দিয়েছেন। কিন্তু ছাত্রকে মারধরের ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর গায়কের এমন আচরণে ক্ষুব্ধ হয়ে গিয়েছিলেন সবাই। কিন্তু আসলে কী ঘটেছিল, সম্প্রতি এক সাক্ষাতকারে তিনি বলেন, “আমি তার কাছে ক্ষমা চেয়েছি। তিনি তখন কাঁদতে কাঁদতে আমায় বলেছিল, 'ওস্তাদ জি আপনি কেন এমন করছেন?' উত্তরে আমি বললাম, আমি তার শিক্ষক। আমি তার বাবার মতো। আমার অভিভাবক এবং আমি স্বীকার করেছি যে আমি তাকে বকাঝকা করেছি। পরে ক্ষমাও চেয়েছি। এটা ঠিক যে, লোকেরা এটি নিয়ে মজা করছে। কিন্তু সত্য হল তার কাছে আমার পবিত্র জল ছিল। মানুষ পরিস্থিতির তীব্রতা বুঝতে পারছে না। এটা আমার জন্য খুবই গুরুতর বিষয় ছিল। কারণ ধর্মীয় নেতার পবিত্র জল ছিল সেখানে। সেই সময়ে, সে ভুল জায়গায় সরিয়ে রেখেছিল, তাতেই আমি রেগে যাই। কারণ এতে আমার আধ্যাত্মিক গাইড জড়িত।”

Advertisement

ভিডিওটিতে ভক্তকে 'বোতল' ধরে ছাত্রকে মারধর করতে দেখা যায়। ভিডিও ভাইরাল হওয়ার ঠিক পরে, রাহাত একটি স্পষ্টীকরণ জারিও করেছিলেন। যাতে তিনি বলেছিলেন, ভাইরাল ভিডিওটি একজন শিক্ষক এবং তার শিষ্যের মধ্যে 'ব্যক্তিগত সমস্যা'। ও আমার ছেলের মতো। একজন শিক্ষক এবং তার শিষ্যের মধ্যে সম্পর্ক এমনই হাওয়াই উচিত। কোনো শিষ্য ভালো কিছু করলে আমি তার প্রতি আমার ভালোবাসার বর্ষণ করি। সে যদি অন্যায় করে, তাহলে তার শাস্তি দিই।" পরে ভিডিও নিয়ে রাহাতের শিষ্য জানান, “তিনি আমার বাবার মতো। তিনি আমাদের অনেক ভালোবাসেন। যারা এই ভিডিওটি ছড়িয়েছে তারা আমার ওস্তাদের মানহানির চেষ্টা করছে।”

Advertisement
Tags :
Advertisement