For the best experience, open
https://m.eimuhurte.com
on your mobile browser.
OthersWeb Stories খেলা ছবিঘরতৃণমূলে ফিরলেন অর্জুন সিংবাংলাদেশপ্রযুক্তি-বাণিজ্যদেশকলকাতাকৃষিকাজ বিনোদন শিক্ষা - কর্মসংস্থান শারদোৎসব লাইফস্টাইলরাশিফলরান্নাবান্না রাজ্য বিবিধ আন্তর্জাতিককরোনাএকুশে জুলাইআলোকপাতঅন্য খবর
Advertisement

কৈখালি থেকে বিরাটি মোড় যেতে সময় লাগছে ৪০ মিনিট, নির্বিকার এয়ারপোর্ট ট্র্যাফিক গার্ড

07:57 PM Mar 09, 2024 IST | Sundeep
কৈখালি থেকে বিরাটি মোড় যেতে সময় লাগছে ৪০ মিনিট  নির্বিকার এয়ারপোর্ট ট্র্যাফিক গার্ড
Advertisement

নিজস্ব প্রতিনিধি: দ্রুত যাতায়াতের জন্য তৈরি হয়েছিল ভিআইপি রোড। কিন্তু সেই গুরুত্বপূর্ণ রোডে চলছে লরি দৌরাত্ম্য। আর তার ফলেই কৈখালি থেকে বিরাটি মোড় পর্যন্ত সাত মিনিটের রাস্তা পেরোতে সময় লাগছে ৪০ মিনিট। বাড়ি ফেরত অফিসযাত্রীদের নিত্য ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। আর সব কিছু দেখেও চোখ বুজে রয়েছে এয়ারপোর্ট ট্র্যাফিক গার্ডের আধিকারিকরা। শুধু তাই নয়। এক নম্বর গেটের সিগন্যালে লরি দাঁড় করিয়ে খুল্লামখুল্লা তোলাবাজির মতো মারাত্মক অভিযোগও উঠেছে এয়ারপোর্ট ট্র্যাফিক গার্ডের কর্মীদের বিরুদ্ধে। নিত্যযাত্রীরা কটাক্ষের সুরে বলেছেন, ‘এয়ারপোর্ট ট্র্যাফিক গার্ডের কর্মীরা এতটাই যোগ্য যে চাঁদে পাঠালেও সেখানে অনায়াসে যানজট তৈরি করার নজির গড়বেন।’

Advertisement

কলকাতা পুলিশ যেখানে নিত্যযাত্রীদের সুবিধার জন্য সকাল আটটা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত শহরে পণ্যবাহী লরি চলাচল নিষিদ্ধ করেছে, সেখানে উল্টোপথে হাঁটছে এয়ারপটোর্ট ট্র্যাফিক গার্ড। সন্ধের পরেই নিউটাউন ও রাজারহাটে নির্মাণকার্যের পণ্য বহণকারী লরি ঢোকা এবং বেরনোর কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। ১০ চাকার লরির পাশাপাশি বিশালাকায় ট্রেলার ঢোকানোয় নিমিষেই যানজট তৈরি হচ্ছে। শুধু তাই নয়। এক নম্বর গেটের সিগন্যালের স্টপেজ টাইম দেওয়া হচ্ছে আট থেকে ১০ মিনিট। আর তার ফলেই গাড়ির দীর্ঘ লাইন পড়ে যাচ্ছে। কৈখালি থেকে এক নম্বর গেট পেরোতে কমপক্ষে দুবার সিগন্যাল খেতে হচ্ছে। ভিআইপি রোডের যানজট কৈখালি ছাড়িয়ে কখনও হলদুরাম পর্যন্ত পৌঁছচ্ছে। আর যশোর রোডের যানজট তিন নম্বর গেট পর্যন্ত চলে যাচ্ছে।

Advertisement

শুধু যে লরি দৌরাত্ম্যের কারণেই যানজট হচ্ছে তাই নয়। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নির্দেশ দেওয়া সত্বেও ভিআইপি ও যশোর রোডজুড়ে অবৈধ পার্কিং চলছে। স্থানীয়দের অভিযোগ রাস্তার উপরে লরি, গাড়ি দাঁড় করিয়ে রাখছেন চালক-মালিকরা। নির্ধারিত মাসোহারার বিনিময়ে ওই অবৈধ পার্কিংয়ে ইন্ধন জোগাচ্ছেন এয়ারপোর্ট ট্র্যাফিক গার্ডের আধিকারিক-কর্মীরা। মাসের পর মাস ধরে দীর্ঘ যানজটে নিত্যযাত্রীরা ভোগান্তির মুখে পড়লেও ভ্রুক্ষেপ নেই ট্র্যাফিক আধিকারিকদের। উল্টে রাত নয়টার পরে নাকা তল্লাশির নামে রাস্তায় ব্যারিকেড তৈরিও করে লরি, ডাম্পার থেকে তোলা আদায় করা হচ্ছে। যদিও নিত্যযাত্রীদের অভিযোগকে সর্বৈব অসত্য বলে দাবি করেছেন এয়ারপোর্ট ট্র্যাফিক গার্ডের আইসি।

Advertisement
Tags :
Advertisement