For the best experience, open
https://m.eimuhurte.com
on your mobile browser.
OthersWeb Stories খেলা ছবিঘরতৃণমূলে ফিরলেন অর্জুন সিংবাংলাদেশপ্রযুক্তি-বাণিজ্যদেশকলকাতাকৃষিকাজ বিনোদন শিক্ষা - কর্মসংস্থান শারদোৎসব লাইফস্টাইলরাশিফলরান্নাবান্না রাজ্য বিবিধ আন্তর্জাতিককরোনাএকুশে জুলাইআলোকপাতঅন্য খবর
Advertisement

ফের ময়াঙ্কের আগুন ঝরানো বোলিং, ২৮ রানে হারলেন কোহলিরা

11:42 PM Apr 02, 2024 IST | Sundeep
ফের ময়াঙ্কের আগুন ঝরানো বোলিং  ২৮ রানে হারলেন কোহলিরা
Advertisement

নিজস্ব প্রতিনিধি, বেঙ্গালুরু: পঞ্জাব কিংসের বিরুদ্ধে হারা ম্যাচ কার্যত তাঁর আগুন ঝরানো বোলিংয়ের কারণেই জিতেছিল লখনউ সুপার জায়ান্টস। মঙ্গলবার রাতে সেই ময়াঙ্ক যাদবের গতির কাছে হার মানতে হল রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুকে। ঘরের মাঠে ১৮২ রানের লক্ষ্য নিয়ে খেলতে নেমে ১৫৩ রানেই গুটিয়ে গেলেন  বিরাট কোহলিরা। ৪ ওভারে ১৪ রানে তিন উইকেট নিলেন ময়াঙ্ক। শুধু তাই নয়, দুই ম্যাচে ৬ উইকেট নিয়ে তরুণ পেসার বুঝিয়ে দিলেন ভবিষ্যতের তারকা হতেই এসেছেন তিনি।

Advertisement

ঘরের মাঠে লখনউয়ের বিরুদ্ধে জিততে বেঙ্গালুরুর প্রয়োজন ছিল ১৮২ রান। শুরু থে, দু্কই ম্ইযাচে সতর্ক হয়ে খেলা শুরু করেন বেঙ্গালুরুর দুই ওপেনার বিরাট কোহলি ও অধিনায়ক ফ্যাপ ডুপ্লেসি। কিন্তু আচমকা অতিরিক্ত আগ্রাসী হতে গিয়ে নিজের উইকেট বিসর্জন দেন বিরাট। ১৬ বলে ২২ রান করে এম সিদ্ধার্থের বলে সাজঘরে ফেরেন চলতি আইপিএলের সর্বোচ্চ রানকারী। ষষ্ঠ ওভারে বল করতে এসেই আগুন ঝরাতে শুরু করেন ময়াঙ্ক যাদব। তার প্রথম বলে অকারণে তাড়াহুড়ো করে রান নিতে গিয়ে আউট হয়ে ফেরেন অফ ফর্মে থাকা বেঙ্গালুরু অধিনায়ক ফ্যাপ ডুপ্লেসি (১৯)। দুই বল বাদে শূন্য রানে ফিরে যান গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। নিজের পরের ওভারে বল করতে এসে ক্যামেরন গ্রিনের স্ট্যাম্প ছিটকে দেন ময়াঙ্ক। ৯ বলে ৯ রান করে ফেরেন অজি অলরাউন্ডার। ৫৮ রানে প্রথম চার ব্যাটারকে হারিয়ে প্রচণ্ড চাপে পড়ে যায় বেঙ্গালুরু।

Advertisement

পঞ্চম উইকেটে জুটি বেঁধে দলকে বিপদ থেকে টেনে তোলার চেষ্টা চালান রজত পাতিদার ও অনুজ রাওয়াত। দুজনে দেখেশুনেই খেলছিলেন। ১৩ তম ওভারে এসে অনুজকে (১১) ফিরিয়ে জুটি ভাঙেন মার্কাস স্টোইনিস। একা কুম্ভ হয়ে খানিকটা লড়াই চালানোর চেষ্টা করেছিলেন রজত পাতিদার। তাকেও ফিরিয়ে দিয়ে বেঙ্গালুরুর ব্যাটিংয়ের শিরদাঁড়া ভেঙে দেন ময়াঙ্ক। দীনেশ কার্তিক (৪) ও ময়াঙ্ক ডাগরও (০) ব্যর্থ হন। শেষের দিকে খানিকটা আগ্রাসী মেজাজে ব্যাট করার চেষ্টা করেছিলেন মহীপাল লোমরুর। ১৩ বলে ৩৩ রান করেন তিনি। কিন্তু তাঁকে থামান যশ ঠাকুর। শেষ ওভারে মোহামমদ সিরাজকে ফিরিয়ে বেঙ্গালুরুকে গুটিয়ে দেন নাভিন উল; হক।

Advertisement
Tags :
Advertisement