For the best experience, open
https://m.eimuhurte.com
on your mobile browser.
OthersWeb Stories খেলা ছবিঘরতৃণমূলে ফিরলেন অর্জুন সিংবাংলাদেশপ্রযুক্তি-বাণিজ্যদেশকলকাতাকৃষিকাজ বিনোদন শিক্ষা - কর্মসংস্থান শারদোৎসব লাইফস্টাইলরাশিফলরান্নাবান্না রাজ্য বিবিধ আন্তর্জাতিককরোনাএকুশে জুলাইআলোকপাতঅন্য খবর
Advertisement

ডায়মন্ডহারবারে অভিষেকের বিরুদ্ধে দাঁড়াচ্ছেন না নওশাদ

05:14 PM Mar 14, 2024 IST | Sundeep
ডায়মন্ডহারবারে অভিষেকের বিরুদ্ধে দাঁড়াচ্ছেন না নওশাদ
Advertisement

নিজস্ব প্রতিনিধি: লোকসভা ভোটে তৃণমূল কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে দাঁড়ানোর হুঙ্কার ছেড়েছিলেন আইএসএফ বিধায়ক নওশাদ সিদ্দিকী। তৃণমূল কংগ্রেসের সেনাপতিকে দিল্লিতে যাবেন বলে চ্যালেঞ্জও নিয়েছিলেন। কিন্তু বৃহস্পতিবার আচমকাই পিছুটান দিলেন তিনি। জানিয়ে দিলেন, ‘জোটের স্বার্থেই ডায়মন্ডহারবারে প্রার্থী হচ্ছেন না।’ নওশাদের ওই ঘোষণার পরেই প্রশ্ন উঠেছে, তাহলে আগেভাগে তিনি যে হুঙ্কার ছুড়েছিলেন, তা কী ফাঁকা আওয়াজ ছিল? নাকি প্রচারে ভেসে থাকতেই ওই কৌশল নিয়েছিলেন? সিপিএম সূত্রে খবর, নওশাদ সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা করায়, ডায়মন্ডহারবারে প্রার্থী হচ্ছেন ডিওয়াইএফআইয়ের নেতা প্রতিকুর রহমান।

Advertisement

২০১৯ সালের লোকসভা ভোটে ডায়মন্ডহারবারে বামেদের হয়ে লড়েছিলেন ফুয়াদ হালিম। কিন্তু আচমকাই নওশাদ ডায়মন্ডহারবারের প্রার্থী হওয়ার কথা জানানোয় রাজ্য রাজনীতিতে ব্যাপক চাঞ্চল্য দেখা দেয়। সবচেয়ে বেশি উল্লসিত হয়ে ওঠে পদ্ম শিবির। কেননা, ডায়মন্ডহারবারে প্রচুর পরিমাণ সংখ্যালঘু ভোটার রয়েছে। আইএসএফ বিধায়ক ওই কেন্দ্রে লড়লে সংখ্যালঘু ভোটাররা দ্বিধাবিভক্ত হয়ে পড়বে এবং অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের হেরে যাওয়ার সম্ভাবনা উজ্জ্বল হয়ে উঠবে বলেও মনে করছিলেন বিজেপির রাজ্য নেতারা। তাই নওশাদ সিদ্দিকী  প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা করার পরেই বিজেপি রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার নিজের উচ্ছ্বাস চাপতে রাখতে না পেরে ‘খেলা হবে’ বলে জানিয়ে দিয়েছিলেন।

Advertisement

গত ১০ মার্চ ব্রিগেডের জনগর্জন সভা থেকেই তৃণমূলের পক্ষে ঘোষণা করা হয়েছিল, ডায়মন্ডহারবার থেকে লড়বেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। বিজেপির পক্ষ থেকে এখনও ওই কেন্দ্রের প্রার্থীর নাম ঘোষণা করা হয়নি। তবে যাঁকে দাঁড় করানোর কথা ভেবেছিলেন বিজেপি শীর্ষ নেতারা তিনি জানিয়ে দিয়েছেন,  ডায়মন্ডহারবারে দাঁড়াবেন না। ফলে অভিষেকের বিরুদ্ধে দাপুটে প্রার্থীর খোঁজ চলছে।  তার মধ্যেই পূর্ব ঘোষণা মতো তৃণমূলের সেনাপতির বিরুদ্ধে না দাঁড়ানোর ঘোষণা করে রাজ্য রাজনীতিতে ফের চর্চার কেন্দ্রবিন্দুতে চলে এসেছেন ভাঙড়ের আইএসএফ বিধায়ক। 

বৃহস্পতিবার বামফ্রন্টের সঙ্গে আসন সমঝোতা নিয়ে বৈঠকে বসেছিল আইএসএফ নেতৃত্ব। ওই বৈঠক শেষে আইএসএফের কার্যকরী সভাপতি সামসুর আলি মল্লিক জানিয়েছেন, রাজ্যের ৪২টি আসনের মধ্যে আটটি আসনে লড়বে দল। উত্তর ২৪ পরগনার বারাসত, বসিরহাট, দক্ষিণ ২৪ পরগনার মথুরাপুর ও যাদবপুর আসনে প্রার্থী দেবে। তবে ডায়মন্ড হারবারে প্রার্থী দিচ্ছে না।

Advertisement
Tags :
Advertisement