For the best experience, open
https://m.eimuhurte.com
on your mobile browser.
OthersWeb Stories খেলা ছবিঘরতৃণমূলে ফিরলেন অর্জুন সিংবাংলাদেশপ্রযুক্তি-বাণিজ্যদেশকলকাতাকৃষিকাজ বিনোদন শিক্ষা - কর্মসংস্থান শারদোৎসব লাইফস্টাইলরাশিফলরান্নাবান্না রাজ্য বিবিধ আন্তর্জাতিককরোনাএকুশে জুলাইআলোকপাতঅন্য খবর
Advertisement

গুজরাত হাইকোর্টের আদেশের পরেই ওটিটিতে মুক্তি পেল আমির পুত্রের 'মহারাজ'

মহারাজ ১৪ জুন নেটফ্লিক্সে প্রিমিয়ার হওয়ার কথা থাকলেও নেটফ্লিক্স ছবির মুক্তি বন্ধ করে দেয়। কারণ গুজরত হাইকোর্ট ছবিটির মুক্তি স্থগিতের জন্যে হিন্দু সম্প্রদায়ের সদস্যরা আদালতে একটি পিটিশনের দায়ের করেছিল।
07:29 PM Jun 21, 2024 IST | Susmita
গুজরাত হাইকোর্টের আদেশের পরেই ওটিটিতে মুক্তি পেল আমির পুত্রের  মহারাজ
Advertisement

নিজস্ব প্রতিনিধি: পোস্টার রিলিজ করার পর থেকেই আইনি ঝামেলায় ছিল আমির খান পুত্রের প্রথম ছবিই 'মহারাজ'। অবশেষে গুজরাত হাইকোর্টের ক্লিনচিট মেলার পরেই নেটফ্লিক্সে মুক্তি পেল 'মহারাজ'। হাইকোর্ট জানিয়েই দিয়েছিল যে, এই ছবিকে যেকোনো সময়েই মুক্তি দেওয়া যেতে পারে। আর দেরি না করে শুক্রবার বিকেলেই নেটফ্লিক্সে মুক্তি পেল 'মহারাজ'। গত কয়েকদিন ধরেই জুনায়েদ খানের প্রথম ছবি 'মহারাজ' সংবাদের শিরোনামে। সুপারস্টারের ছেলের প্রথম ছবি দেখার জন্যে অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন ভক্তরা। কিন্তু হিন্দু ভাবাবেগে আঘাতের অভিযোগে জুনায়েদ খানের ছবি মুক্তির স্থগিতাদেশ দিয়েছিল গুজরাত হাইকোর্ট। নেটফ্লিক্সে মুক্তি পাওয়ার কথা ছবিটির। অবশেষে বৃহস্পতিবার ছবিটিকে ক্লিনচিট দিয়েছে গুজরাত আদালত। আর ক্লিনচিট পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই নেটফ্লিক্সে মুক্তি পেয়েছে 'মহারাজ'। ছবিটি একটি বাস্তব জীবনের ঘটনা দ্বারা অনুপ্রাণিত এবং সৌরভ শাহের বই 'মহারাজ' থেকে অভিযোজিত। গল্পের নায়ক একজন সমাজ সংস্কারক, যিনি উল্লেখযোগ্য ইতিবাচক সামাজিক পরিবর্তন নিয়ে এসেছিলেন স্বাধীনতার পূর্ববর্তী সময়ে।

Advertisement

শুক্রবার বিকেলে চলচ্চিত্র সমালোচক কোমল নাহতা তার এক্স অ্যাকাউন্টে গিয়ে জানান যে, "মহারাজের উপর থেকে গুজরাত হাইকোর্ট স্থগিতাদেশ তুলে নিয়েছে এবং ক্লিনচিট দিয়েছে। বিচারক বলেছেন, ফিল্মে আপত্তিকর কিছুই নজরে পড়েনি, তাই ছবিটি মুক্তি দেওয়া যেতে পারে। তাই YRF এবং Netflix মামলা জিতে গিয়েছে। এখন যেকোনও সময় ফিল্মটি Netflix-এ স্ট্রিম করা যেতে পারে। এটি ১৪ জুন মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু পুষ্টিমার্গ সম্প্রদায়ের একদল লোক ছবিটির মুক্তির নিষেধাজ্ঞার পিটিশন নিয়ে আদালতে মামলা দায়ের করলে, আদালত ছবিটির মুক্তি স্থগিত করে দেয়। তাঁরা ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করার অভিযোগ এনেছিল।" এত বিতর্ক থাকার জন্যই মহারাজকে নিয়ে কোনও প্রচার করা হয়নি এবং ছবির টিজার ও ট্রেলার কিছুই প্রকাশ্যে আনা হয়নি। মহারাজ ১৪ জুন নেটফ্লিক্সে প্রিমিয়ার হওয়ার কথা থাকলেও নেটফ্লিক্স ছবির মুক্তি বন্ধ করে দেয়। কারণ গুজরত হাইকোর্ট ছবিটির মুক্তি স্থগিতের জন্যে হিন্দু সম্প্রদায়ের সদস্যরা আদালতে একটি পিটিশনের দায়ের করেছিল। তারা দাবি করেছিল যে, ছবিটি মুক্তি পেলে হিন্দু ভাবাবেগে আঘাত আসতে পারে। তাই তাঁরা ছবিটি মুক্তি বন্ধ করার জন্যে আদালতে পিটিশন জমা দেয়।

Advertisement

চলচ্চিত্র সম্পর্কে

সিদ্ধার্থ পি মালহোত্রা পরিচালিত এবং YRF এন্টারটেইনমেন্টের অধীনে আদিত্য চোপড়া প্রযোজিত, মুভিটিতে জুনায়েদ খানের পাশাপাশি জয়দীপ আহলাওয়াতও অভিনয় করেছেন। ছবির পোস্টারটিতে দুই অভিনেতাকে পাশাপাশি দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গিয়েছে। হিন্দু পুরোহিতের চরিত্রে অভিনয় করেছেন জয়দীপ, তাঁর চরিত্রের কপালে একটি 'তিলক' ছিল এবং জুনায়েদ একজন সাংবাদিক হিসেবে ছবিতে অভিনয় করে। ১৮৬২ সালের মহারাজ মানহানির মামলাটি কী? ছবিতে জুনায়েদ খান সাংবাদিক এবং সমাজ সংস্কারক কারসানদাস মুলজির ভূমিকায় অভিনয় করেছেন, আর আহলাওয়াতকে বল্লভাচার্য সম্প্রদায়ের অন্যতম প্রধান যদুনাথজি ব্রজরতনজি মহারাজের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন। ছবিটি ১৮৬২ সালের মহারাজ মানহানির মামলার উপর ভিত্তি করে তৈরি করা হয়েছে যা ভারতের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ আইনি লড়াইগুলির মধ্যে একটি। এটিকে "ওয়ারেন হেস্টিংসের বিচারের পর থেকে আধুনিক সময়ের সর্বশ্রেষ্ঠ বিচার"ও বলা হয়। ১৮৬২ সালে বোম্বে হাইকোর্টে পরিচালিত একটি ট্রায়াল ধর্মীয় নেতা যদুনাথজি ব্রজরতনজি মহারাজের কথিত যৌন অসদাচরণের প্রকাশের জন্য বাস্তব জীবনের সাংবাদিক কারসানদাস মুলজির মধ্যে লড়াই বেঁধেছিল। এরপর ১৮৬২ সালে ২২ এপ্রিল মামলাটি কারসানদাস মুলজির পক্ষে রায় হয়ে শেষ হয়। বিচারের জন্য মোট ১৪,০০০ টাকা খরচ করে, আদালত তাকে ১১,৫০০ টাকা পুরস্কার প্রদান করে। বিচারক আর্নল্ড ঘোষণা করেন, "এটি ধর্মতত্ত্বের প্রশ্ন নয় যা আমাদের সামনে মামলাটি শেষ করার জন্য রয়েছে। এটি নৈতিকতার সঙ্গে সম্পর্কিত।"

Advertisement
Tags :
Advertisement