For the best experience, open
https://m.eimuhurte.com
on your mobile browser.
OthersWeb Stories খেলা ছবিঘরতৃণমূলে ফিরলেন অর্জুন সিংবাংলাদেশপ্রযুক্তি-বাণিজ্যদেশকলকাতাকৃষিকাজ বিনোদন শিক্ষা - কর্মসংস্থান শারদোৎসব লাইফস্টাইলরাশিফলরান্নাবান্না রাজ্য বিবিধ আন্তর্জাতিককরোনাএকুশে জুলাইআলোকপাতঅন্য খবর
Advertisement

সাইফার মামলায় বেকসুর খালাস পেলেন ইমরান খান

08:06 PM Jun 03, 2024 IST | Sundeep
সাইফার মামলায় বেকসুর খালাস পেলেন ইমরান খান
Advertisement

নিজস্ব প্রতিনিধি, ইসলামাবাদ: বড় সড় স্বস্তি পেলেন পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইমরান। রাষ্ট্রীয় তথ্য ফাঁস মামলায় (সাইফার কেস) তাঁকে বেকসুর খালাস ঘোষণা করল ইসলামাবাদ হাইকোর্ট। সোমবার ইসলামাবাদ হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি আমির ফারুখ ও বিচারপতি মিয়াঙ্গুল হাসান আওরঙ্গজেবের সমন্বয়ে গঠিত ডিভিশন বেঞ্চ প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ছাড়াও প্রাক্তন বিদেশ মন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশিকে বেকসুর খালাস দিয়েছেন। ইসলামাবাদ হাইকোর্টের রায়ের পরেই উ‍ৎসবে মেতে উঠেছেন পাকিস্তান তেহরিকে ইনসাফের (পিটিআই) নেতা-কর্মীরা।

Advertisement

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে অপসারিত হওয়ার কয়েক মাস আগেই ইমরান খান দাবি করেন, তাঁকে সরাতে ষড়যন্ত্র চালাচ্ছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। এ বিষয়ে ওয়াশিংটনে নিযুক্ত পাকিস্তানের তৎকালীন রাষ্ট্রদূত মাজিদ যে কূটনৈতিক তার বার্তা পাঠিয়েছিলেন তা প্রকাশ্যে এসেছিলেন পিটিআইয়ের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান। আর তা নিয়েই বিতর্ক দানা বাঁধে। রাষ্ট্রীয় গোপন তথ্য প্রকাশ্যে আনার জন্য ইমরান খান ও প্রাক্তন বিদেশ মন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশির বিরুদ্ধে দায়ের হয় মামলা। ওই মামলায় চলতি বছরের ৩০ জানুয়ারি প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ও বিদেশ মন্ত্রীকে ১০ বছরের সাজা শুনিয়েছিল ইসলামাবাদের বিশেষ আদালত। ওই রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে ইসলামাবাদ হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন ইমরান ও শাহ মেহমুদ কুরেশি। শুনানি শেষে সোমবার রায় দিতে গিয়ে দুজনকেই বেকসুর খালাস দেয় ইসলামাবাদ হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি আমির ফারুখ ও বিচারপতি মিয়াঙ্গুল হাসান আওরঙ্গজেবের সমন্বয়ে গঠিত ডিভিশন বেঞ্চ।

Advertisement

এদিন রায় দানের সময়ে ইসলামাবাদ হাইকোর্টে ইমরান খানের বোন এবং শাহ মাহমুদ কুরেশির স্ত্রী ও কন্যারাও হাজির ছিলেন। এছাড়া পিটিআইয়ের শীর্ষ নেতারাও উপস্থিত ছিলেন। রায়কে স্বাগত জানিয়ে পিটিআই চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার গওহর খান বলেছেন, ‘পাকিস্তান ও পাকিস্তানের ২৫ কোটি মানুষের জন্য আজ একটি খুশির দিন। একটি ভিত্তিহীন ও রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার মামলার অবসান হয়েছে।’

Advertisement
Tags :
Advertisement