For the best experience, open
https://m.eimuhurte.com
on your mobile browser.
OthersWeb Stories খেলা ছবিঘরতৃণমূলে ফিরলেন অর্জুন সিংবাংলাদেশপ্রযুক্তি-বাণিজ্যদেশকলকাতাকৃষিকাজ বিনোদন শিক্ষা - কর্মসংস্থান শারদোৎসব লাইফস্টাইলরাশিফলরান্নাবান্না রাজ্য বিবিধ আন্তর্জাতিককরোনাএকুশে জুলাইআলোকপাতঅন্য খবর
Advertisement

লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের কথা তুলে ধরে কেন্দ্রকে নিশানা মমতার

01:21 PM Mar 05, 2024 IST | Mainak Das
লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের কথা তুলে ধরে কেন্দ্রকে নিশানা মমতার
Advertisement

নিজস্ব প্রতিনিধি : লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের কথা তুলে ধরে কেন্দ্রকে নিশানা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মঙ্গলবার মেদিনীপুরের সভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী জানান, লক্ষ্মীর ভাণ্ডার সারা দেশে মডেল হয়ে গিয়েছে। বাংলার সরকার গ্যারান্টি দিলে সেটা হয়। কিন্তু দিল্লির সরকার গ্যারান্টি দিলে সেটা হয় না।

Advertisement

এদিন লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের কথা তুলে ধরে মুখ্যমন্ত্রী জানান, ‘লক্ষ্মীর ভাণ্ডার এখন মডেল হয়ে গিয়েছে। দিল্লিও করেছে দেখলাম। দিল্লি এই লক্ষ্মীর ভাণ্ডারে খরচ করেছে দুই হাজার কোটি টাকা। তবে রাজ্য সরকারের খরচ হয়েছে ২৫ থেকে ২৬ হাজার কোটি টাকা। কারণ, আমাদের উপভোক্তার সংখ্যা ওদের থেকে অনেকটাই বেশি।‘ উল্লেখ্য, সোমবার দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল ঘোষণা করেছিলেন, ১৮ বছরের ওপরের মেয়ের হাজার টাকা করে দেওয়া হবে। কেজরিওয়ালের সেই ঘোষণার পরই এদিন মেদিনীপুরের সভা থেকে লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের প্রসঙ্গ উল্লেখ করেন মমতা। এই প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী জানান, যতদিন বাঁচবেন ততদিন মহিলারা এই লক্ষ্মীর ভাণ্ডার পাবেন। এই লক্ষ্মীর ভাণ্ডার কখনও বন্ধ হবে না।

Advertisement

এদিন কেন্দ্রকে নিশানা করে মুখ্যমন্ত্রী জানান, দিল্লির সরকারের গ্যারাণ্টি কখনও কাজে লাগে না। এই গ্যারান্টি ভোটের আগে গ্যাস বেলুন। ভোট চলে গেলেই সেই গ্যাস বেলুন ফুটো হয়ে যায়। শুধু কেন্দ্রীয় সরকারকেই নয়, সিপিএম আমলে পুরনো দিনের কথাও মনে করিয়ে দেন মমতা। এই প্রসঙ্গে তিনি জানান, একটা সময়ে জঙ্গলমহলকে মানুষ ভয় পেত। কেশপুরে সাত জনকে সিপিএম খুন করেছিল। আমি চমকাইতলা দেখেছি। চমকাইতলায় অজিত পাঁজাকে ঘিরে নিয়েছিল সিপিএম। লালগড়ের জঙ্গলে আমার গাড়ি চার ঘণ্টা আটকে রেখেছে। সিপিএমের হার্মাদরাই এখন বিজেপির গদ্দার হয়েছে। এদের কাউকে বিশ্বাস করবেন না। আসন্ন ব্রিগেড সমাবেশে আসার আহ্বান জানিয়ে তৃণমূল নেত্রী জানান, আগামী দিনে গর্জন বাংলাই তুলবে। সবাই ব্রিগেডে চলুন।

এদিন মেদিনীপুরে দুই হাজার টাকার প্রকল্পের উদ্বোধন ও শিলান্যাস করেন মুখ্যমন্ত্রী। ঘাটাল মাস্টার প্ল্যান প্রসঙ্গে কেন্দ্রকে বিঁধে মুখ্যমন্ত্রী জানান, দীর্ঘদিন ধরে ঘাটাল মাস্টার প্ল্যান আটকে রয়েছে। কেন্দ্রের সঙ্গে বহুবার বৈঠক করেও কোনও কাজ হয়নি। ঘাটাল মাস্টার প্ল্যান এবার রাজ্য সরকারই করবে। পাশাপাশি কেশপুর ও কেশিয়ারি ব্লক স্বাস্থ্য কেন্দ্রকে ৩০ বেড থেকে বাড়িয়ে ৬০ বেড করার কথা জানান তিনি। একইসঙ্গে বাংলায় ১১ লক্ষ বাড়ি তৈরির কাজের কথাও তুলে ধরেন মুখ্যমন্ত্রী। এই প্রসঙ্গে তিনি জানান, ‘এই কাজের জন্য আমরা দিল্লির জন্য অপেক্ষা করব না। আমরাই করব।‘

Advertisement
Tags :
Advertisement