For the best experience, open
https://m.eimuhurte.com
on your mobile browser.
OthersWeb Stories খেলা ছবিঘরতৃণমূলে ফিরলেন অর্জুন সিংবাংলাদেশপ্রযুক্তি-বাণিজ্যদেশকলকাতাকৃষিকাজ বিনোদন শিক্ষা - কর্মসংস্থান শারদোৎসব লাইফস্টাইলরাশিফলরান্নাবান্না রাজ্য বিবিধ আন্তর্জাতিককরোনাএকুশে জুলাইআলোকপাতঅন্য খবর
Advertisement

গণপিটুনি সংক্রান্ত বিল রাজভবনে আটকে থাকায় আক্ষেপ মমতার

08:25 PM Jul 04, 2024 IST | Mainak Das
গণপিটুনি সংক্রান্ত বিল রাজভবনে আটকে থাকায় আক্ষেপ মমতার
Advertisement

নিজস্ব প্রতিনিধি: বিধানসভায় পাশ হয়ে গেলেও গণপিটুনি বিরোধী বিল আটকে রয়েছে রাজভবনে। বৃহস্পতিবার বিশিষ্টজনদের সঙ্গে বৈঠকে এই নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন রীতিমতো ক্ষোভের সুরেই মুখ্যমন্ত্রী জানান, রাজ্যে আইনটি চালু হলে হয়ত গণপিটুনির মতো ঘটনা ঘটত না। প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার ডাইনি অপবাদ দিয়ে ফাঁসিদেওয়ায় গণপিটুনিতে এক মহিলার মৃত্যু হয়েছে।

Advertisement

বৃহস্পতিবার আলিপুরে সৌজন্য প্রেক্ষাগৃহে বিশিষ্টজনদের একাংশের সঙ্গে বৈঠক করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই বৈঠকেই গণপিটুনির প্রসঙ্গটি তোলেন মুখ্যমন্ত্রী। সম্প্রতি রাজ্যে গণপিটুনির ঘটনা যেভাবে বেড়ে চলেছে, তা নিয়ে রীতিমতো আক্ষেপ প্রকাশ করে মুখ্যমন্ত্রী জানান, ‘গণপিটুনি বিরোধী বিলটি পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভায় পাশ করানো হয়েছিল। কিন্তু পাঁচ বছর ধরে সেটি রাজভবনে আটকে রয়েছে। রাজ্যে যদি আইনটি চালু হয়ে যেত, তাহলে হয়ত গণপিটুনির মতো ঘটনা ঘটতই না।‘ এদিন মুখ্যমন্ত্রী সাফ জানিয়ে দেন, রাজ্য সরকার গণপিটুনির মতো ঘটনার ঘোর বিরোধী। রাজভবনে বিলটি আটকে থাকায় এই বিষয়ে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া যাচ্ছে না।

Advertisement

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালে রাজ্য বিধানসভা গণপিটুনি বিরোধী বিলটি পাশ হয়েছিল। এরপরই বিলটি রাজভবনে পাঠানো হয়েছিল। সেইসময় রাজ্যপাল ছিলেন জগদীপ ধনখড়। তাঁর অভিযোগ ছিল, যে বিল বিধানসভায় পাশ করানো হয়েছে আর যে বিল রাজভবনে পাঠানো হয়েছে, তা আলাদা। বিধানসভার অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে জবাবদিহি চেয়েছিলেন তদানীন্তন রাজ্যপাল। সম্প্রতি বিধানসভার অধ্যক্ষ জানিয়েছেন, রাজভবনকে ওই বিল সম্পর্কে সব প্রকার বক্তব্য জানানো হয়ে গিয়েছে। এরপরও বিলটি রাজভবন থেকে অনুমোদন পায়নি। জগদীপ ধনখড়ের পর লা গণেশন কিছুদিনের জন্য রাজ্যপাল হয়ে এসেছিল। তারপর রাজ্যপাল হিসাবে্ দায়িত্ব পান সিভি আনন্দ বোস। তিনিও এখনও পর্যন্ত গণপিটুনি বিরোধী বিলটিতে অনুমোদন দেননি।

Advertisement
Tags :
Advertisement