For the best experience, open
https://m.eimuhurte.com
on your mobile browser.
OthersWeb Stories খেলা ছবিঘরতৃণমূলে ফিরলেন অর্জুন সিংবাংলাদেশপ্রযুক্তি-বাণিজ্যদেশকলকাতাকৃষিকাজ বিনোদন শিক্ষা - কর্মসংস্থান শারদোৎসব লাইফস্টাইলরাশিফলরান্নাবান্না রাজ্য বিবিধ আন্তর্জাতিককরোনাএকুশে জুলাইআলোকপাতঅন্য খবর
Advertisement

২ তারিখ থেকে ধর্না মমতার, ৩ তারিখ যোগ দেবেন জনপ্রতিনিধিরা

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন জানিয়েছেন ২ ফেব্রুয়ারি থেকে যে ধর্না তিনি শুরু করবেন সেখানে ৩ তারিখে দলের সব জনপ্রতিনিধিদের হাজির হতে হবে।
04:08 PM Jan 31, 2024 IST | Koushik Dey Sarkar
২ তারিখ থেকে ধর্না মমতার  ৩ তারিখ যোগ দেবেন জনপ্রতিনিধিরা
Courtesy - Facebook and Google
Advertisement

নিজস্ব প্রতিনিধি: বাংলার(Bengal) প্রতি বঞ্চনার রেকর্ড গড়ে দিয়েছে কেন্দ্রের ক্ষমতাসীন নরেন্দ্র মোদির(Narendra Modi) সরকার। ১০০ দিনের কাজের টাকা, আবাস যোজনার টাকা, জাতীয় স্বাস্থ্য মিশনের টাকা সহ একাধিক প্রকল্পের টাকা আটকে রেখেছে মোদি সরকার। এছাড়াও রয়েছে আগেকার একাধিক ক্ষেত্রে বাংলার প্রাপ্য টাকার হিসাবও। সব মিলিয়ে কেন্দ্রের থেকে এখন বাংলার প্রাপ্র্য ১ লক্ষ ২০ হাজার কোটি টাকা। সেই টাকার দাবিতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়(Mamata Banerjee) একাধিকবার প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়েছেন, দিল্লিতে গিয়ে দেখা করেছেন, এমনকি তৃণমূলের(TMC) তরফে সেখানে ধর্নাও দেওয়া হয়েছে। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয়নি। কিন্তু সেই বকেয়ার দাবিতেই আবারও ধর্নায় বসতে চলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন অর্থাৎ বুধবার তিনি ইংরেজবাজার ও বহরমপুর থেকে জানিয়েছেন ২ ফেব্রুয়ারি থেকে যে ধর্না(Dharna Programme) তিনি শুরু করবেন সেখানে ৩ তারিখে দলের সব জনপ্রতিনিধিদের হাজির হতে হবে।

Advertisement

মমতা কেন্দ্রের কাছে বাংলার বকেয়া চেয়ে এর আগেও কলকাতার রেড রোডে ধর্নায় বসেছেন। আবারও তিনি বসতে চলছেন। এদিন তিনি জানিয়েছেন, ‘১০০ দিনের কাজের টাকা আটকে রেখেছে কেন্দ্র। আইন মানছে না, সংবিধানও মানছে না। গায়ের জোরে টাকা আটকে রেখেছে। ১০০’র বেশি প্রতিনিধি দল পাঠিয়েছে। কিছুই পায়নি। গরীব মানুষগুলোকে দিয়ে কাজ করিয়ে টাকা দিচ্ছে না। কিন্তু মনে রাখবেন আমি এখনও মরে যাইনি। ১ তারিখের মধ্যে টাকা না দিলে ২ তারিখ থেকে ধর্না করব। তার পর দেখব কত ধানে কত চাল। যারা কাজ করে টাকা পাননি, যারা বাড়ি তৈরির টাকা পাননি, যাঁরা বঞ্চিত, তাঁদের বলবো কলকাতায় আমার সঙ্গে ধর্না দিতে। দলের সাংসদ, বিধায়ক, জেলা পরিষদের সদস্য, পুরসভার কাউন্সিলররা, পঞ্চায়েত সমিতির সদস্যদের বলবো এই মানুষগুলোকে নিয়ে কলকাতায় আসতে হবে। ট্রেন, বাস ভাড়া করার দায়িত্ব আপনাদের। প্রয়োজনে এক মাসের মাইনে দিয়ে এই কাজ করতে হবে। কিন্তু এর জন্য চাঁদা তোলা যাবে না।’

Advertisement

মুখ্যমন্ত্রী এদিন জানিয়েছেন, ১ ফেব্রুয়ারির মধ্যে কেন্দ্রীয় সরকার বকেয়া না দিলে, ২ ফেব্রুয়ারি অর্থাৎ আগামী শুক্রবার থেকে তিনি কলকাতার রেড রোডে ধর্নায় বসবেন। ওই দিন দুপুর ১টায় শুরু হবে কর্মসূচি। বস্তুত, গত বছর মার্চ মাসে, একই দাবিতে দু’দিনের ধর্না করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। তবে এ বার তাঁর ধর্না কত দিন চলবে তা স্পষ্ট করেননি তিনি। তবে এদিন বিভ্রান্তি ছড়িয়েছে মুখ্যমন্ত্রীর ধর্নাস্থল নিয়ে। ইংরেজবাজারে তিনি দাবি করেছেন বাবা সাহেব অম্বেডকরের মূর্তির পাদদেশে ধর্না হবে, আবার বহরমপুরের সভায় বলেন, গান্ধি মূর্তির পাদদেশে হবে ধর্না। তবে কলকাতায় যে কর্মসূচি হচ্ছে, তা স্পষ্ট হয়ে গিয়েছ। তবে এবারের ধর্নায় সম্ভবত তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে দেখা যাবে না। তিনি ওই ২দিন থাকবেন দিল্লিতে। সংসদের বাজেট অধিবেশন নিয়ে ব্যস্ত থাকবেন তিনি।  

Advertisement
Tags :
Advertisement