For the best experience, open
https://m.eimuhurte.com
on your mobile browser.
OthersWeb Stories খেলা ছবিঘরতৃণমূলে ফিরলেন অর্জুন সিংবাংলাদেশপ্রযুক্তি-বাণিজ্যদেশকলকাতাকৃষিকাজ বিনোদন শিক্ষা - কর্মসংস্থান শারদোৎসব লাইফস্টাইলরাশিফলরান্নাবান্না রাজ্য বিবিধ আন্তর্জাতিককরোনাএকুশে জুলাইআলোকপাতঅন্য খবর
Advertisement

পুলিশ নয়, ওঝা ডেকে চোর ধরা হচ্ছে নন্দীগ্রামে

08:02 PM Jan 20, 2024 IST | Subrata Roy
পুলিশ নয়  ওঝা ডেকে চোর ধরা হচ্ছে নন্দীগ্রামে
Advertisement

নিজস্ব প্রতিনিধি,নন্দীগ্রাম: পুলিশ নয়, ওঝা ডেকে চোর ধরা হচ্ছে নন্দীগ্রামে। তাও আবার পঞ্চায়েত প্রধানের সরকারি প্যাডে দেওয়া অনুমতি নিয়ে।ভারত চাঁদের মাটিতে চন্দ্রযান থ্রি পাঠালেও মধ্যযুগীয় বর্বরতা আজও নন্দীগ্রামে(Nandigram) অটুট রয়েছে।নন্দীগ্রাম দু'নম্বর ব্লকের বিরুলিয়া গ্রাম পঞ্চায়েত, দীর্ঘদিন তৃণমূল কংগ্রেসের দখলে ছিল। ২০২৩ এর পঞ্চায়েত নির্বাচনে বিরুলিয়া গ্রাম পঞ্চায়েত দখল করে বিজেপি।বিরুলিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের(Birulia Gram Panchayet) বিরুলিয়া গ্রামের বাসিন্দা শিব শংকর জানা নামে এক ব্যক্তির বাড়ি থেকে সোনার গহনা চুরি যায়।এই চুরির ঘটনাকে কেন্দ্র করে গ্রামে পঞ্চায়েত সদস্যের উপস্থিতিতে সালিশি সভা বসে। সেই সভায় ঠিক হয় ওঝা ডেকে চোর ধরা হবে। ওঝা ডেকে চোর ধরার অনুমতি স্বরূপ,বিরুলিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের প্যাডে, পঞ্চায়েত সদস্য এবং ওই গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান স্বাক্ষর করেন।

Advertisement

পরবর্তীতে ওঝা এসে স্থানীয় ভাষায় "নল ধরকা" নামের কোন বস্তু দিয়ে ওই গ্রামেরই বাসিন্দা বনবিহারী জানা নামের এক ব্যক্তির পরিবারকে সনাক্ত করেন।ওঝা চোর সনাক্ত করার পরেই বনবিহারী জানার পরিবারের উপর নেমে আসে নির্মম অত্যাচার। মারধর থেকে শুরু করে বাড়িঘর ভাঙচুর করা হয়।অসহায় হয়ে শেষ পর্যন্ত বনবিহারীবাবু তিনি নন্দীগ্রাম থানার দ্বারস্থ হন।তিনি ওই এলাকার কয়েকজনের নামে নন্দীগ্রাম থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

Advertisement

যদিও নন্দীগ্রাম থানার(Nandigram Police Station) পুলিশ এখনো পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি।বিরুলিয়া গ্রামের সালিশি সভায় উপস্থিত ওই গ্রামের মনোরঞ্জন মাইতি বলেন"পঞ্চায়েত সদস্য এবং প্রধানের অনুমতিতে আমরা ওঝাকে ডেকে নিয়ে এসেছিলাম এবং "নল ধরকা" দিয়ে চোর ধরা হয়েছিল"।পঞ্চায়েত প্রধান(Panchayet Pradhan) মৈত্রী গুড়িয়া দাস তিনি অবশ্য ওঝা ডেকে চোর ধরার বিষয়ে সরকারি প্যাডে স্বাক্ষর করে অনুমতি দেওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেছেন।বিজেপি(BJP) পরিচালিত গ্রাম পঞ্চায়েতে এ ধরনের ঘটনাকে কটাক্ষ করেছে তৃণমূল কংগ্রেস তৃণমূল কংগ্রেসের(TMC) নন্দীগ্রাম ১ ব্লক সভাপতি বাপ্পাদিত্ত গর্গ তিনি বলেন, বিজেপি এখনো পর্যন্ত মধ্যযুগীয় বন্ধ্যাত্বতাতে আক্রান্ত,তার থেকে এখনো বের হতে পারেনি। এটা তার প্রমান।

Advertisement
Tags :
Advertisement