For the best experience, open
https://m.eimuhurte.com
on your mobile browser.
OthersWeb Stories খেলা ছবিঘরতৃণমূলে ফিরলেন অর্জুন সিংবাংলাদেশপ্রযুক্তি-বাণিজ্যদেশকলকাতাকৃষিকাজ বিনোদন শিক্ষা - কর্মসংস্থান শারদোৎসব লাইফস্টাইলরাশিফলরান্নাবান্না রাজ্য বিবিধ আন্তর্জাতিককরোনাএকুশে জুলাইআলোকপাতঅন্য খবর
Advertisement

সলমানকে ফের হত্যার ছক, পাকিস্তান থেকে বিপুল অস্ত্রের আমদানি, গ্রেফতার ৪

পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদের সময়, অভিযুক্তরা প্রকাশ করেছে যে, অজয় ​​কাশ্যপ পাকিস্তানে ডোগা নামে এক ব্যক্তির সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন, এম-16, AK-47 এবং AK-92 কেনার জন্যে।
11:47 AM Jun 01, 2024 IST | Susmita
সলমানকে ফের হত্যার ছক  পাকিস্তান থেকে বিপুল অস্ত্রের আমদানি  গ্রেফতার ৪
Advertisement

নিজস্ব প্রতিনিধি: একের পর এক হামলার ছক সুপারস্টার সলমান খানের উপর। গত ১৪ এপ্রিল অভিনেতার বাড়িতে এলোপাথাড়ি গুলি চালিয়েও দুষ্কৃতীদের শান্তি হয়নি। যদিও সেদিন সলমনের বাড়িতে গুলি চালানোর ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এর রেশ কাটতে না কাটতেই আবারও বিপাকে সুপারস্টার। এবার সলমনের গাড়ির হামলার পরিকল্পনা করেছে কুখ্যাত গ্যাংস্টার লরেন্স বিষ্ণোইয়ের দলবল। তবে তাঁদের কার্যসিদ্ধি হওয়ার আগেই গ্যাংস্টারের দলবলের পরিকল্পনা নস্যাৎ করেছে মুম্বই পুলিশ। ইতিমধ্যেই পানভেলে অভিনেতার গাড়িতে হামলার পরিকল্পনাকারী লরেন্স বিষ্ণোইয়ের গ্যাং থেকে চারজনকে গ্রেফতার করেছে মুম্বই পুলিশ।

Advertisement

জানা গিয়েছে, এবার পাকিস্তানি অস্ত্র সরবরাহকারীর কাছ থেকে অস্ত্র পাওয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন লরেন্স বিষ্ণোইয়ের গ্যাং। সূত্রের খবর, ধৃত চার অভিযুক্ত লরেন্স বিষ্ণোই গ্যাংয়ের সদস্য। যাঁরা অভিনেতার ফার্ম হাউস এবং অনেক শুটিং লোকেশনে টহল দিয়েছেন। আরও জানা গিয়েছে, সলমান খানকে AK-47-সহ আরও ভয়ানক অস্ত্রগুলির দ্বারা গুলি চালানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল তাঁদের। ইতিমধ্যেই অভিযুক্তদের মোবাইল ফোন থেকে এমন অনেক ভিডিও উদ্ধার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত অভিযুক্তরা হলেন ধনঞ্জয় ওরফে অজয় ​​কাশ্যপ, গৌরব ভাটিয়া ওরফে নাহভি, ওয়াসপি খান ওরফে ওয়াসিম চিকনা এবং রিজওয়ান খান ওরফে জাভেদ খান। এছাড়াও মুম্বই পুলিশ লরেন্স বিষ্ণোই, আনমোল বিষ্ণোই, সম্পত নেহরা, গোল্ডি ব্রার-সহ ১৭ জনেরও বেশি লোকের বিরুদ্ধে এফআইআর নথিভুক্ত করেছে। এবং আরও তদন্ত চলছে। পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদের সময়, অভিযুক্তরা প্রকাশ করেছে যে, অজয় ​​কাশ্যপ পাকিস্তানে ডোগা নামে এক ব্যক্তির সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন, এম-16, AK-47 এবং AK-92 কেনার জন্যে।

Advertisement

এফআইআর-এও একই কথা বলা হয়েছে। চলতি বছরের ১৪ এপ্রিল ভোরে বান্দ্রায় সলমান খানের গ্যালাক্সি অ্যাপার্টমেন্টের বাইরে দুই অজ্ঞাত ব্যক্তি kলরেন্স গ্যাংয়ের সঙ্গে যুক্ত দুই শুটার) তিন থেকে চার রাউন্ড গুলি চালিয়ে ঘটনাস্থল থেকে পালায়। উভয় বন্দুকধারী বাইকে করে এসে বাতাসে গুলি ছুড়ে পালিয়ে যায়। দুজনেই হেলমেট পরা ছিল, যার কারণে তাদের শনাক্ত করা যায়নি। সলমানের অ্যাপার্টমেন্টের বাইরেও ওই গুলির চিহ্ন পাওয়া গেছে। এমনকি একটি গুলি অভিনেতার বাড়ির বারান্দার জাল দিয়ে চলে গেছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ঘটনার দায় নেন লরেন্সের ভাই আনমোল বিষ্ণোই। এরপর সিসিটিভি ফুটেজ দেখে ৩ জনকে গ্রেফতার করেন পুলিশ। পরে বন্দুকধারীদের জিজ্ঞাসাবাদে তারা দুজনেই লরেন্স গ্যাং থেকে এই কাজের জন্য সুপারি পাওয়ার কথা স্বীকার করে। মুম্বাই ক্রাইম ব্রাঞ্চ এই মামলায় বিষ্ণোই ভাইদের অভিযুক্ত করেছে এবং লরেন্স বিষ্ণোই বর্তমানে গুজরাটের সবরমতি কারাগারে বন্দী রয়েছে বলে জিজ্ঞাসাবাদের প্রস্তুতি নিচ্ছে। বহুদিন ধরেই কুখ্যাত গ্যাংস্টার লরেন্স বিষ্ণোইয়ের নজরে রয়েছেন সলমান খান। ১৯৯৮ সালে সলমান খান লরেন্স বিষ্ণোইয়ের পবিত্র কালো হরিণকে হত্যা করার পরেই অভিনেতার বিরুদ্ধে চড়াও হয় তাঁরা। ইতিমধ্যেই অভিনেতাকে একাধিক মৃত্যু হুমকি চিঠি পাঠানো হয়েছে। যত পর্যন্ত সলমান না ক্ষমা চাইছেন ততক্ষণ তাঁরা এমন হামলা চালিয়ে যাবে বলেই জানিয়েছেন।

Advertisement
Tags :
Advertisement