For the best experience, open
https://m.eimuhurte.com
on your mobile browser.
OthersWeb Stories খেলা ছবিঘরতৃণমূলে ফিরলেন অর্জুন সিংবাংলাদেশপ্রযুক্তি-বাণিজ্যদেশকলকাতাকৃষিকাজ বিনোদন শিক্ষা - কর্মসংস্থান শারদোৎসব লাইফস্টাইলরাশিফলরান্নাবান্না রাজ্য বিবিধ আন্তর্জাতিককরোনাএকুশে জুলাইআলোকপাতঅন্য খবর
Advertisement

নববর্ষে পাতে রাখুন পেঁয়াজ-রসুন ছাড়া বিহারের ঐতিহ্যবাহী মৈথেলি মাটন

অবশ্য বিভিন্ন মাকালী মন্দিরের ভোগে নিরামিষ মাংস দেওয়া হয়। তেমনি একটি নিরামিষ মাংসের নাম হল মৈথিলী মাংস। এর আগে বিহারের চম্পারন মাংসের কথা শুনেছেন। এবার সে রাজ্যেরই মৈথিলী মাংসের রান্নার রেসিপির কথা জানাবো।
02:15 PM Apr 12, 2024 IST | Sushmitaa
নববর্ষে পাতে রাখুন পেঁয়াজ রসুন ছাড়া বিহারের ঐতিহ্যবাহী মৈথেলি মাটন
Advertisement

নিজস্ব প্রতিনিধি: অনেক তো হল বাঙালি স্বাদের রান্না, অবশ্যই বাঙালি খাবার জগৎ বিখ্যাত। তা সত্ত্বেও বাঙালি নানারকম রান্নাবান্না নিয়ে প্রতিনিয়ত এক্সপেরিমেন্ট করে চলেছে। মাঝে মধ্যে অন্যান্য দেশের রান্নাবান্নাতেও চোখ পড়ছে বাঙালির। আর সবটাই কৃতিত্ব যায় রেস্তোরাঁর উপর। সেখান থেকে খেয়ে এসে বাড়িতে কিভাবে সেই রেসিপি বানানো যায়, সেই নিয়েও চলে নানা রকম কারসাজি। যদিও এখন মুশকিল আসান করে দেয় বিভিন্ন রান্নার ইউটিউব চ্যানেলগুলি। সামনেই পয়লা বৈশাখ। আর বাংলার নববর্ষ মানেই আগে মাথায় আসে ভুরিভোজ। কারণ এদিনটা মোটামুটি সবাই বাড়িতেই থাকে। এ বছর আবার পয়লা বৈশাখ পড়েছে রবিবার। ছুটির দিনে একেবারে উৎসব মুখর পরিবেশ গড়ে উঠবে বাংলার প্রতিটি ঘরে ঘরে। এদিন দুপুরে মনের মানুষকে পঞ্চব্যাঞ্জনে কী খাওয়া বেন, তার কি ফন্দি ফিকির এখনও করেছেন। না করলে এই প্রতিবেদন করতে পারে আপনার মুশকিল আসান। তা হল আমাদের পড়শি রাজ্য বিহারের ঐতিহ্যবাহী একটি রান্না। এর আগে কী নিরামিষভাবে মাংস রান্না করেছেন? অবশ্য বিভিন্ন মাকালী মন্দিরের ভোগে নিরামিষ মাংস দেওয়া হয়। তেমনি একটি নিরামিষ মাংসের নাম হল মৈথিলী মাংস। এর আগে বিহারের চম্পারন মাংসের কথা শুনেছেন। এবার সে রাজ্যেরই মৈথিলী মাংসের রান্নার রেসিপির কথা জানাবো। নববর্ষের ভোজে এই পদটিকে কিন্তু রাখতেই পারেন পছন্দের তালিকায়।

Advertisement

উপকরণ

Advertisement

৫০০ গ্রাম পাঁঠার মাংস, ৩ টেবিল চামচ টক দই, ১ চা চামচ লঙ্কার গুঁড়ো, ১ চা চামচ ধনে গুঁড়ো, ১ চা চামচ জিরে গুঁড়ো, ২ চা চামচ দারচিনি গুঁড়ো, দেড় চা চামচ আদা বাটা, আধ চা চামচ হিং, স্বাদ অনুযায়ী নুন, ২ টেবিল চামচ ঘি, ১ চা চামচ চিনি, ৪-৫টি ছোট এলাচ, ৪-৫টি লবঙ্গ।

প্রণালী

প্রথমে একটি বড় পাত্রে মাংস নিয়ে নিন। তাতে একে একে টক দই, লঙ্কার গুঁড়ো, ধনে গুঁড়ো, জিরে গুঁড়ো, দারুচিনি গুঁড়ো, আদাবাটা আর হিং, সব উপকরণ মাংসের সঙ্গে খুব ভাল করে মেখে রেখে দিন ঘণ্টাখানেক। এরপর কড়াই আঁচে বসিয়ে তাতে কোনও ফোড়ন বা তেল না দিয়েই ঢেলে দিন ম্যারিনেট করা মাংস। এরপর দুই থেকে আড়াই কাপ জল ঢেলে স্বাদ অনুযায়ী নুন দিয়ে ভাল করে নাড়াচাড়া করে কম আঁচে ঢাকা দিয়ে দিন কড়াই। তবে মাঝেমধ্যে ঢাকা খুলে রান্নাটি নাড়তে থাকুন। যদি জল বেশি শুকিয়ে যায়, তবে অল্প করে গরম জল মিশিয়ে দিন। সময়ের অভাবে প্রেসার কুকারেও রান্নাটি করতে পারেন। মাংস সেদ্ধ হয়ে এলে কড়াইটি আঁচ থেকে নামিয়ে দিন। এরপর আরেকটি কড়াই আঁচে বসিয়ে দিন। এরপর ঘি গরম করে দিয়ে দিন চিনি। চিনিতে রং ধরলে ছোট এলাচ, লবঙ্গ, দারচিনি গুঁড়ো আর সামান্য হিং মিশিয়ে দিন। এরপর মাংস ভাল ভাবে সেদ্ধ হয়ে এলে ভাত কিংবা পোলাওয়ের সঙ্গে পরিবেশন করুন মৈথেলি মাংস। জাস্ট জমে যাবে নববর্ষের ভূরিভোজ।

Advertisement
Tags :
Advertisement