For the best experience, open
https://m.eimuhurte.com
on your mobile browser.
OthersWeb Stories খেলা ছবিঘরতৃণমূলে ফিরলেন অর্জুন সিংবাংলাদেশপ্রযুক্তি-বাণিজ্যদেশকলকাতাকৃষিকাজ বিনোদন শিক্ষা - কর্মসংস্থান শারদোৎসব লাইফস্টাইলরাশিফলরান্নাবান্না রাজ্য বিবিধ আন্তর্জাতিককরোনাএকুশে জুলাইআলোকপাতঅন্য খবর
Advertisement

অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মীর বিরুদ্ধে প্রতিবেশীকে গুলি চালানোর অভিযোগ

08:08 PM Feb 21, 2024 IST | Subrata Roy
অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মীর বিরুদ্ধে প্রতিবেশীকে গুলি চালানোর অভিযোগ
Advertisement

নিজস্ব প্রতিনিধি,বীরভূম: বীরভূম জেলায় পারুই থানার অন্তর্গত বাতিকার গ্রামে অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মীর বিরুদ্ধে তার লাইসেন্স প্রাপ্ত বন্দুক থেকে প্রতিবেশীকে গুলি চালানোর অভিযোগ।পারুই থানা এলাকার, বাতিকার গ্রামে মুক্তি পদ রক্ষিত এর বাড়ির  সামনের বাড়ির বাসিন্দা গোষ্ঠ গোপাল হাজরা গুলি চালিয়েছে বলে অভিযোগ। ভোর চারটের সময় তার বাড়ি লক্ষ্য করে গুলি চালায় গোষ্ঠ গোপাল হাজরা।

Advertisement

তিনি প্রাক্তন সেনা জওয়ান ছিলেন এবং তার জন্যই তার কাছে একটি গান লাইসেন্স আছে বলে সূত্রের খবর। আর সেই বন্দুক থেকেই গুলি চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ। গুলি চালানোর সঙ্গে সঙ্গে গুলির বেশ কিছু স্প্রিন্টার মুক্তি পদ রক্ষিতের গায়েও লাগে এবং সেখানেই রক্তারক্তি অবস্থায় হয়ে যায় । তারপরে পারুই থানায় এসে অভিযোগ জানানো হয় ।ইতিমধ্যেই পারুই থানার (Parui P.S.)পুলিশ ওই প্রাক্তন সেনা কর্মী গোষ্ঠ গোপাল হাজরাকে আটক করেছে।মুক্তিপদ পরিবারের লোকরা আতঙ্কে রয়েছেন। পারুই থানার পুলিশ ঘটনা তদন্ত করছে। তদন্তের সাথে ওই সেনা কর্মীর লাইসেন্স প্রাপ্ত বন্দুকটি পুলিশ আটক করেছে। কেন প্রাক্তন সেনাকর্মী তার প্রতিবেশীকে গুলি ছোড়ে তা জানতে তদন্ত করছে।

Advertisement

প্রেমিকাকে হত্যা করে আত্মঘাতীর চেষ্টা প্রেমিকের।প্রেমিকার মাথায় ভারি কিছু দিয়ে আঘাত করে খুন করার পর বিষ খেয়ে আত্মঘাতী হওয়ার চেষ্টা প্রেমিকের। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি পান্ডুয়া থানার(Pandua P.S.) মহানাদ এলাকার। মৃতার নাম সৌমি গাঙ্গুলি (২১)। গুরুতর আহত অবস্থায় চুঁচুড়া ইমামবাড়া সদর হাসপাতালে ভর্তি প্রেমিক সৈকত সরকার (২৮)। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে খবর, মহানাদ উচ্চ বিদ্যালয়ের ইতিহাসের শিক্ষিকার মেয়ে সৌমির সাথে বেজপাড়ার বাসিন্দা সৈকতের(Saikat) প্রণয়ের সম্পর্ক ছিল। সৌমি বিদ্যালয় চত্বরের আবাসনে মায়ের সাথেই থাকতেন। বেশকিছু দিন ধরে সেই সম্পর্কের অবনতি হয়।

এদিকে,মঙ্গলবার রাতে স্কুল চত্বরেই সৌমির রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার হয়। তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত বলে ঘোষণা করেন। হুগলির গ্রামীণ পুলিশের অতিরিক্ত সুপার (হেড কোয়ার্টার) কল্যাণ সরকার জানান, সৌমির মাথায় ভারি কিছু দিয়ে আঘাত করা হয়েছিল। রাতেই পান্ডুয়া থানায় মৃতার মা সৈকতের বিরুদ্ধে মেয়েকে খুনের অভিযোগ করেন। পুলিশ ৩০২ ধারায় মামলা রুজু করে তদন্তে নেমে জানতে পারে সৈকত বিষক্রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান সম্পর্কে অবনতির জেরেই সৌমিকে মেরে সৈকত আত্মঘাতীর চেষ্টা করেছিল। সবদিক খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

Advertisement
Tags :
Advertisement