For the best experience, open
https://m.eimuhurte.com
on your mobile browser.
OthersWeb Stories খেলা ছবিঘরতৃণমূলে ফিরলেন অর্জুন সিংবাংলাদেশপ্রযুক্তি-বাণিজ্যদেশকলকাতাকৃষিকাজ বিনোদন শিক্ষা - কর্মসংস্থান শারদোৎসব লাইফস্টাইলরাশিফলরান্নাবান্না রাজ্য বিবিধ আন্তর্জাতিককরোনাএকুশে জুলাইআলোকপাতঅন্য খবর
Advertisement

DMK নেতার মাদক মামলার প্রমাণ জোগাড়ে তামিলনাড়ুর একাধিক স্থানে তল্লাশি ইডির

তাঁরা আরও বলেছে, সাদিকের সমসাময়িক আরও কয়েকজনকে তাঁরা আটক করেছে। ৩৬ বছর বয়সী সাদিকের বিরুদ্ধে প্রায় ৩,৫০০ কেজি সিউডোফেড্রিন পাচারের অভিযোগ রয়েছে। যার মোট মূল্য ২০০০ কোটিরও বেশি
12:16 PM Apr 09, 2024 IST | Sushmitaa
dmk নেতার মাদক মামলার প্রমাণ জোগাড়ে তামিলনাড়ুর একাধিক স্থানে তল্লাশি ইডির
Advertisement

নিজস্ব প্রতিনিধি: দক্ষিণী ইন্ডাস্ট্রিতে আবার কেচ্ছা। গত বছরই দক্ষিণের একটি বিশাল প্রযোজনা সংস্থার অফিসে কোটি কোটি কালো টাকার হদিস পেয়ে তল্লাশি চালিয়েছিল ইডির দলবল। মাস কয়েক আগে মাদক পাচারের অভিযোগে বিদেশ থেকে গ্রেফতার করা হয়েছিল প্রাক্তন DMK কর্মকর্তা জাফর সাদিককে। তাঁর মাদক র‌্যাকেট মামলায় জড়িয়েছে তামিল চলচ্চিত্রের আরেক প্রযোজক এর নাম। যার নাম আমির সুলতান। ইতিমধ্যেই তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব পাঠিয়েছেন NCB মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো। ২,০০০ কোটি টাকার আন্তর্জাতিক মাদক চোরাচালানের সঙ্গে জড়িত এই মামলা। জানা গিয়েছে, এই মাদক র‌্যাকেট চলত প্রাক্তন ডিএমকে কর্মকর্তা তথা প্রযোজক জাফর সাদিকের নেতৃত্বাধীনে। বিষয়টি সামনে এসেছিল গত ৯ মার্চ। তাঁর বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো (NCB) বলেছে, ভারত-অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড মাদক পাচার নেটওয়ার্কের প্রধান চক্রী ছিলেন দক্ষিণের এই ফেমাস পরিচালক জাফর সাদিক(Jaffer Sadiq)।

Advertisement

সূত্রের খবর অনুযায়ী, সাদিক, শুধু খ্যাতনামা পরিচালক নন। পাঁচটি তামিল চলচ্চিত্রও প্রযোজনা করেছিলেন। জানা গিয়েছিল, তিনি কার্টেলের মাধ্যমে ভারত থেকে অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ডে সিউডোফেড্রিন পাঠাতেন। এই মামলার বিষয়ে মঙ্গলবার এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি) জানিয়েছে, তাঁরা প্রাক্তন ডিএমকে কর্মকর্তা জাফর সাদিক এবং অন্যদের বিরুদ্ধে মাদক পাচার-সংযুক্ত অর্থ পাচার তদন্তের অংশ হিসাবে তামিলনাড়ুর একাধিক শহরে অভিযান চালাচ্ছে। রাজ্যের রাজধানী চেন্নাই, মাদুরাই এবং তিরুচিরাপল্লীতে ২৫ টিরও বেশি প্রাঙ্গণে অর্থ লন্ডারিং প্রতিরোধ আইনের (পিএমএলএ) বিধানের অধীনে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের আধিকারিকরা, কেন্দ্রীয় আধা-সামরিক বাহিনী তল্লাশি চালাচ্ছে। তাঁরা আরও বলেছে, সাদিকের সমসাময়িক আরও কয়েকজনকে তাঁরা আটক করেছে। ৩৬ বছর বয়সী সাদিকের বিরুদ্ধে প্রায় ৩,৫০০ কেজি সিউডোফেড্রিন পাচারের অভিযোগ রয়েছে। যার মোট মূল্য ২০০০ কোটিরও বেশি। এনসিবি আরও বলেছে যে, তামিল এবং হিন্দি ফিল্ম ফাইন্যান্সারদের সঙ্গে সাদিকের সম্পর্ক রয়েছে, এছাড়াও কিছু "হাই-প্রোফাইল" লোক এবং "রাজনৈতিক তহবিল" এর কিছু উদাহরণ তার স্ক্যানারের অধীনে ছিল।

Advertisement

তামিলনাড়ুর ডিডিজি জ্ঞানেশ্বর সিং, (অপারেশনস) বলেছেন, সাদিক দ্রাবিড় মুনেত্র কাজগামের (DMK) সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। তিনি চেন্নাই ওয়েস্ট ডেপুটি অর্গানাইজার হিসেবে একটি দায়িত্বে ছিলেন। কিন্তু ২৫ ফেব্রুয়ারি তিনি দল থেকে স্থায়ীভাবে বরখাস্ত হন। বর্তমানে সর্বভারতীয় আন্না দ্রাবিড় মুনেত্র কাজগাম (AIDMK) ভারতীয় জনতা পার্টির (BJP) সঙ্গে মিলে তামিলনাড়ুর আরও দলগুলির বিরুদ্ধে রাজনৈতিক যুদ্ধে নেমেছে। এর মধ্যেই চোরাচালানে জাফরের নাম উঠে আসা ডিএমকে-র উপরেও যথেষ্ঠ চাপ বৃদ্ধি করেছে বলে খবর। তবে জাফরের এই চোরাচালানের কারসাজি অনেকদিন আগেই নিউজিল্যান্ড এবং অস্ট্রেলিয়া কর্তৃপক্ষ জেনে গিয়েছিল। এবং খাদ্য পণ্যের ছদ্মবেশে তাদের দেশে মাদকের বিশাল চোরাচালান সম্পর্কে ভারত সরকারকে অবহিতও করেছিল সে দেশের সরকার।কিন্তু মামলাটি ভেস্তে যায়। এরপর এনসিবি তদন্ত শুরু করে।

Advertisement
Tags :
Advertisement