For the best experience, open
https://m.eimuhurte.com
on your mobile browser.
OthersWeb Stories খেলা ছবিঘরতৃণমূলে ফিরলেন অর্জুন সিংবাংলাদেশপ্রযুক্তি-বাণিজ্যদেশকলকাতাকৃষিকাজ বিনোদন শিক্ষা - কর্মসংস্থান শারদোৎসব লাইফস্টাইলরাশিফলরান্নাবান্না রাজ্য বিবিধ আন্তর্জাতিককরোনাএকুশে জুলাইআলোকপাতঅন্য খবর
Advertisement

মস্কোর শপিং মলে জঙ্গি হামলা নিয়ে রাষ্ট্রপুঞ্জের বিবৃতিতে ক্ষুব্ধ রাশিয়া

01:51 AM Mar 23, 2024 IST | Sundeep
মস্কোর শপিং মলে জঙ্গি হামলা নিয়ে রাষ্ট্রপুঞ্জের বিবৃতিতে ক্ষুব্ধ রাশিয়া
Advertisement

নিজস্ব প্রতিনিধি: মস্কোর অদূরে শপিং মলে জঙ্গি হামলা নিয়ে রাষ্ট্রপুঞ্জের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরসের পক্ষ থেকে দেওয়া বিবৃতিতে ক্ষুব্ধ রাশিয়া। শুক্রবার এক সাংবাদিক সম্মেলনে রুশ বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভা এ বিষয়ে ক্ষোভ উগরে দিয়ে বলেছেন, ‘কনসার্ট হলে ভয়াবহ হামলা চালিয়ে বোমাবাজি করে এবং গুলি চালিয়ে ৪০ জন নিরীহ নাগরিককে মেরেছেন জঙ্গিরা। তার পরেও রাষ্ট্রপুঞ্জের মহাসচিব ‘দায়সারা’ গোছের বিবৃতি দিয়েছেন। জঙ্গি হামলার বিরুদ্ধে কোনও কঠোর বার্তা দেননি। এটা লজ্জার।’ এক ধাপ এগিয়ে ইউক্রেনে ঢুকে জঙ্গি নিকেশের হুঙ্কার ছুড়েছেন প্রাক্তন রুশ প্রেসিডেন্ট দিমিত্রি মেদেভেদ। তাঁর কথায়, ‘হামলার পিছনে কিয়েভের উস্কানি রয়েছে। জঙ্গি হামলার বদলা নিতে পাল্টা হামলা চালানোর সময় এসেছে।’

Advertisement

শুক্রবার সন্ধ্যায় রুশ রাজধানী মস্কোর ক্রকাস সিটি হলে সেনাবাহিনীর জংলা পোশাক পরে হানা দেয় পাঁচ জঙ্গি। কেউ কিছু বুঝে ওঠার আগেই বোমা ছুড়তে শুরু করে দেয়। ধোঁয়ার কুণ্ডলী ছেয়ে যায় গোটা হলজুড়ে। বিকট শব্দে গোটা এলাকা কেঁপে ওঠে। বোমাবাজির পরে এলোপাথাড়ি গুলি ছুড়তে শুরু করে। ওই গুলির বৃষ্টি থেকে বাঁচতে অনেকেই প্রাণভয়ে মাটিতে শুয়ে পড়েন। কেউ-কেউ হামাগুড়ি দিয়ে পালানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু প্রাণ নিয়ে অনেকেই পালাতে পারেননি। গুলিবিদ্ধ হয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। প্রায় ১৫ থেকে ২০ মিনিট ধরে চলে ওই হামলা। বন্দুকবাজদের হামলার খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে ছুটে আসা দাঙ্গারোধী পুলিশ বাহিনী। পুরো এলাকা ঘিরে ধরে। হেলিকপ্টারের মাধ্যমে হতাহতদের উদ্ধার করে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।  বিভিন্ন সমাজমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ছবিতে দেখা গিয়েছে, কনসার্ট হলের বিভিন্ন জায়গায় বহু মরদেহ পড়ে রয়েছে।

Advertisement

দুঘর্টনার খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে পৌঁছয় দাঙ্গারোধী পুলিশের বিশাল বাহিনী। চারিদিকে ঘিরে ফেলার পাশাপাশি আশেপাশের এলাকা খালি করে দেয়। হতাহতদের উদ্ধার করে হেলিকপ্টারের সাহায্যে হাসপাতালে নিয়ে যায়। আহতদের মধ্যে বেশ কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। ফলে মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা। প্রতিবেদন প্রকাশ পর্যন্ত কোনও জঙ্গি সংগঠন ওই হামলার দায় স্বীকার করেনি।

Advertisement
Tags :
Advertisement