For the best experience, open
https://m.eimuhurte.com
on your mobile browser.
OthersWeb Stories খেলা ছবিঘরতৃণমূলে ফিরলেন অর্জুন সিংবাংলাদেশপ্রযুক্তি-বাণিজ্যদেশকলকাতাকৃষিকাজ বিনোদন শিক্ষা - কর্মসংস্থান শারদোৎসব লাইফস্টাইলরাশিফলরান্নাবান্না রাজ্য বিবিধ আন্তর্জাতিককরোনাএকুশে জুলাইআলোকপাতঅন্য খবর
Advertisement

সন্দেশখালিকাণ্ডের ৬৪ দিন পর থানার ওসি বদল

03:33 PM Mar 09, 2024 IST | Subrata Roy
সন্দেশখালিকাণ্ডের ৬৪ দিন পর থানার ওসি বদল
Advertisement

নিজস্ব প্রতিনিধি,সন্দেশখালি: দেরিতে হলেও বোধোদয় জেলা ও রাজ্য পুলিশ প্রশাসনের। সন্দেশখালি কাণ্ডের ৬৪ দিনের মাথায় সন্দেশখালি থানার ওসি বদল করে দিল জেলা পুলিশ প্রশাসন। শনিবার সকালে এই মর্মে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করেছেন বসিরহাট পুলিশ জেলার পুলিশ সুপার ডক্টর হাসান মেহেদী রহমান। তাতে জানানো হয়েছে, সন্দেশখালি থানায়(Sandeshkhali P.S.) বর্তমানে যিনি ওসি ছিলেন, সেই বিশ্বজিৎ সাঁপুইকে পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে বসিরহাট থানায়। আর বসিরহাট পুলিশ জেলার স্পেশাল অপারেশন গ্রুপের ওসি গোপাল সরকারকে পাঠানো হচ্ছে সন্দেশখালি থানার ওসি দায়িত্ব নিতে। এতদিন পর কেন এই সিদ্ধান্ত সে সম্পর্কে যদিও জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে কোন উত্তর মেলেনি। তবে কি সন্দেশখালির বিদায়ী ওসি বিশ্বজিৎ সাপুইর সঙ্গে শেখ শাহজাহান, শিবু হাজরা এবং উত্তম সরদারদের মধ্যে কোনো বোঝাপড়া ছিল ?

Advertisement

সেই কারণেই কি এত আস্ফালন শেখ শাজাহান বাহিনীর ? হঠাৎ এই বদলি? সেই প্রশ্ন তুলে দিল রাজনৈতিক মহল। কারণ এর আগে সন্দেশখালি কাণ্ডে গ্রেফতার হওয়া সন্দেশখালির প্রাক্তন সিপিআইএম বিধায়ক নিরাপদ সর্দারের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগের তারিখ এবং এফআইআরে লেখা তারিখের ভুলের জন্য খেশরাত দিতে হয়েছিল বসিরহাট থানার(Bashirhat P.S.) আইসি কাজল চট্টোপাধ্যায়কে। গত সপ্তাহে তাকেও সরিয়ে দিয়েছিল জেলা পুলিশ প্রশাসন। ফের শনিবার সন্দেশখালি থানার ওসির বদল ঘিরে অসন্তোষের সৃষ্টি হয়েছে খোদ পুলিশ মহলেই। সন্দেশখালিকান্ডের প্রতিবাদে রবিবার সন্দেশখালিতে কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে জনসভা করবেন রাজ্যের বিরোধী দল নেতা শুভেন্দু অধিকারী।

Advertisement

সেখানে লক্ষাধিক মানুষের সমাগমের সম্ভাবনা রয়েছে। তার আগেই শনিবার সকালে জেলা পুলিশ প্রশাসনের তরফ থেকে নতুন করে আরো ৬ টি জায়গায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। আগামী ১০ তারিখ রাত ১২ টা পর্যন্ত এই নিষেধাজ্ঞা জারি থাকবে বলে পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাইকে ঘোষণা করা হয়েছে। যদিও ওই দিনই কলকাতার ব্রিগেড ময়দানে তৃণমূল কংগ্রেসের জনগর্জন সভার ডাক দিয়েছেন নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু নতুন করে এই ১৪৪ ধারা(144)জারীর ফলে সন্দেশখালি থেকে সেই সভায় মানুষের যোগদান করতে যাওয়া নিয়েও সমস্যা তৈরি হতে পারে বলেও মনে করছেন স্থানীয় তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা কর্মীদের একাংশ।

Advertisement
Tags :
Advertisement