For the best experience, open
https://m.eimuhurte.com
on your mobile browser.
OthersWeb Stories খেলা ছবিঘরতৃণমূলে ফিরলেন অর্জুন সিংবাংলাদেশপ্রযুক্তি-বাণিজ্যদেশকলকাতাকৃষিকাজ বিনোদন শিক্ষা - কর্মসংস্থান শারদোৎসব লাইফস্টাইলরাশিফলরান্নাবান্না রাজ্য বিবিধ আন্তর্জাতিককরোনাএকুশে জুলাইআলোকপাতঅন্য খবর
Advertisement

মন্দিরের মধ্যে শিশুকে ধর্ষণ,অভিযুক্তকে ৩০ বছরের কারাদণ্ড সুপ্রিম কোর্টের

01:06 PM Feb 06, 2024 IST | Srijita Mallick
মন্দিরের মধ্যে শিশুকে ধর্ষণ অভিযুক্তকে ৩০ বছরের কারাদণ্ড সুপ্রিম কোর্টের
Advertisement

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ মন্দিরের মধ্যে শিশু কন্যাকে ধর্ষণ। ঘটনাটি ঘটেছে মধ্যপ্রদেশের একটি মন্দিরে। ২০১৮ সালে মধ্যপ্রদেশের একটি মন্দিরে সাত বছরের শিশুকন্যাকে ধর্ষণের দায়ে এক ব্যক্তিকে ৩০ বছরের কারাদণ্ড দিল সুপ্রিম কোর্ট।

Advertisement

নির্যাতিতা মেয়েটির ঠাকুমা  এক যুবকের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ আনে। এছাড়াও অভিযুক্তের বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে এফআইয়ার দায়ের করে। জানা গিয়েছে, অভিযুক্ত ওই শিশুটিকে মধ্যপ্রদেশের একটি মন্দিরে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে।

Advertisement

এই ঘটনার পরেই অভিযুক্তকে দোষী সাব্যস্ত করে  নিম্ন আদালত। তাকে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৬ এবি ধারায় (১২ বছরের কম বয়সী মহিলার উপর ধর্ষণ) মৃত্যুদণ্ড দেয়। মধ্যপ্রদেশ হাইকোর্ট অবশ্য দোষীর বাকি জীবনের জন্য যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের নির্দেশ দিয়েছে।আর এবার সুপ্রিম কোর্টের  বিচারপতি সি টি রবিকুমার এবং বিচারপতি রাজেশ বিন্দালের বেঞ্চ অভিযুক্তকে ৩০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে। শুধু কারাদণ্ড নয় অভিযুক্তকে ১ লক্ষ টাকা জরিমানাও করেছে শীর্ষ আদালত।

এই ধর্ষণের মামলা নিয়ে  শীর্ষ আদালত বলেছে, ‘৩৭৬ (২) ধারা এবং পকসো আইনের বিভিন্ন ধারায় দোষী সাব্যস্ত হওয়া সত্ত্বেও নিম্ন আদালত পকসো আইনের অপরাধের জন্য ওই ব্যক্তিকে পৃথক কোনও সাজা দেয়নি । কারণ তাকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছিল।‘ উল্লেখ্য, "ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৬ এবি ধারা অনুসারে অভিযুক্তের  ২০ বছর বা  যাবজ্জীবন  কারাদণ্ড পর্যন্ত  হতে পারে। এছাড়া অভিযুক্তকে সাজা ভোগের পাশাপাশি জরিমানাও দিতে হবে। কারণ, সেই টাকা নির্যাতিতার চিকিৎসা খাতে খরচ হবে।

Advertisement
Tags :
Advertisement