For the best experience, open
https://m.eimuhurte.com
on your mobile browser.
OthersWeb Stories খেলা ছবিঘরতৃণমূলে ফিরলেন অর্জুন সিংবাংলাদেশপ্রযুক্তি-বাণিজ্যদেশকলকাতাকৃষিকাজ বিনোদন শিক্ষা - কর্মসংস্থান শারদোৎসব লাইফস্টাইলরাশিফলরান্নাবান্না রাজ্য বিবিধ আন্তর্জাতিককরোনাএকুশে জুলাইআলোকপাতঅন্য খবর
Advertisement

সাঁতার কাটতে গিয়ে হাঙরের মুখে অস্ট্রেলিয়ান মহিলা, তার পর….

05:29 PM Jan 30, 2024 IST | Sundeep
সাঁতার কাটতে গিয়ে হাঙরের মুখে অস্ট্রেলিয়ান মহিলা  তার পর…
Advertisement

নিজস্ব প্রতিনিধি: কথায় বলে, ‘জলে কুমির, ডাঙায় বাঘ’। কিন্তু জলে কুমির নয়, ওঁত পেতে ঘাঁপটি মেরে বসেছিল বিশালাকায় হাঙর। আর মনের সুখে সাঁতার কাটতে গিয়ে সেই হাঙরের মুখোমুখি হলেন এক অস্ট্রেলিয়ান মহিলা। সঙ্গে সঙ্গেই বড় হাঁ করে কামড়ও বসিয়েছিল বুল প্রজাতির হাঙর। আক্রান্ত মহিলা কোনওক্রমে নিজেকে বাঁচাতে পেরেছেন। সমুদ্র সৈকতে থাকা স্থানীয়রা ছুটে গিয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় আক্রান্ত মহিলাকে উদ্ধার করেন। চিকি‍ৎসার পরে আপাতত স্থিতিশীল ওই মহিলা। হাঙরের মুখ থেকে বেঁচে ফিরে আসাকে পুনর্জন্ম বলেই মনে করছেন তিনি।

Advertisement

অস্ট্রেলিয় সংবাদমাধ্যম ‘এবিসি’ নিউজ জানিয়েছে, গতকাল সোমবার সিডনির এলিজাবেথ সমুদ্র সৈকতে সাঁতার কাটতে নেমেছিলেন লরেন ও’নিল নামে ২৯ বছরের এক মহিলা। আর সাঁতার কাটার সময়েই বুল প্রজাতির হাঙরের আক্রমণের মুখে পড়েন তিনি। পায়ে কামড় বসিয়ে ভিতরে টেনে নেওয়ার চেষ্টা চালায় খুনে হাঙরটি। কোনও ক্রমে সেই ধারালো দাঁতের কামড় থেকে নিজেকে রক্থেষা করেন লরেন। যদিও হাঙরের বসানো দাঁতে অনেকক্ষণ ধরেই রক্তক্ষরণ ঘটে তাঁর। কোনও ক্রমে সেই রক্তপাত বন্ধ করা সম্ভব হয়েছ। সিডনি বন্দর কর্তৃপক্ষের মতে, এলিজাবেথ সৈকত এলাকা বুল হাঙরদের অবাধ বিচরণ ক্ষেত্র হয়ে দাঁড়িয়েছে। ২০০৯ সালে এক ডুবুরি একদল বুল হাঙরের মুখোমুখি হয়েছিলেন। ওই হামলায় এক পা ও এক হাত হারিয়েছিলেন তিনি।

Advertisement

বিশ্বে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রেই সবচেয়ে বেশি হাঙর আক্রমণের ঘটনা ঘটে। আমেরিকার পরেই হাঙরের আক্রমণের নিরিখে অস্ট্রেলিয়ার স্থান। সদ্য সমাপ্ত ২০২৩ সালে অস্ট্রেলিয়ায় ১৪ জন হাঙরের আক্রমণের মুখে পড়েছিলেন। তার মধ্যে চার জন মারাত্মক জখম হয়েছিলেন। বরাত জোরে বেঁচে ফিরেছিলেন।

Advertisement
Tags :
Advertisement