For the best experience, open
https://m.eimuhurte.com
on your mobile browser.
OthersWeb Stories খেলা ছবিঘরতৃণমূলে ফিরলেন অর্জুন সিংবাংলাদেশপ্রযুক্তি-বাণিজ্যদেশকলকাতাকৃষিকাজ বিনোদন শিক্ষা - কর্মসংস্থান শারদোৎসব লাইফস্টাইলরাশিফলরান্নাবান্না রাজ্য বিবিধ আন্তর্জাতিককরোনাএকুশে জুলাইআলোকপাতঅন্য খবর
Advertisement

রাজার ছবি পোড়ানোয় থাইল্যান্ডে মানবাধিকার কর্মীর চার বছরের জেল

02:07 PM May 27, 2024 IST | Reshmi Khatun
রাজার ছবি পোড়ানোয় থাইল্যান্ডে মানবাধিকার কর্মীর চার বছরের জেল
courtesy google
Advertisement

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : থাইল্যান্ডের রাজা মহা ভাজিরালংকর্নের ছবি পোড়ানোর অপরাধে এক মানবাধিকার কর্মীকে চার বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে থাই আদালত। সোমবার (২৭ মে) আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

Advertisement

জানা গেছে, ২০২১ সালে সরকারবিরোধী আন্দোলন হয়েছিল থাইল্যান্ডে। সেই সময় প্রকাশ্যে থাই রাজার ছবি পুড়িয়েছিলেন সঙ্গীতশিল্পী চাইআমর্ন কাউউইবুনপান। ব্যাংককের একটি কারাগারের সামনে আন্দোলনের সময় থাই রাজার ছবি পোড়ানোর ওই ঘটনাটি ঘটেছিল। এর পরপরই চাইআমর্ন তাঁর ব্যান্ডের ফেসবুক পেজে লিখেছিলেন,  এই ছবি পোড়ানোর কাজটি তিনি করেছেন এবং এর জন্য তিনি কেবল একমাত্র দায়ী।

Advertisement

ছবি পোড়ানোর কথা স্বীকার করলেও চাইআমর্ন দাবি করেছিলেন, এতে রাজার কোনো অপমান হয়নি। এই প্রসঙ্গে থাই সঙ্গীতশিল্পী আরও জানান, এই কাজটি করা বোকামি ছিল তাঁর জন্য। আটক অধিকারকর্মীদের সাহায্য করতে না পারার হতাশা থেকে এই কাজ করেছিলেন তিনি।

ওই সময় চাইআমর্নের পাশাপাশি আরও কয়েক ডজন আন্দোলনকারীর বিরুদ্ধে রাজ পরিবারকে অপমান করার অভিযোগ আনা হয়েছিল। তবে রাজার ছবি পোড়ানোর ঘটনায় চাইআমর্নকে কঠোর লেস ম্যাজেস্ট আইনে অভিযুক্ত করা হয়েছে। এতে দোষী প্রমাণিত হলে ১৫ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ডের বিধান রয়েছে।

শুধু তাই নয় থাই সঙ্গীতশিল্পীর বিরুদ্ধে রয়েছে আরও অভিযোগ। জানা গেছে, অগ্নিসংযোগ এবং কম্পিউটার অপরাধেরও অভিযোগ আনা হয়েছিল তাঁর বিরুদ্ধে।

উল্লেখ্য ইল্যান্ডের বিতর্কিত এবং সবচেয়ে কঠোর আইন হল ‘লেসে মেজেস্টি’। এই আইনে কোনো জনগণ যদি দেশটির রাজতন্ত্রের বা রাজার পরিবারের সমালোচনা করে তবে পেতে হবে ভয়াবহ শাস্তি। থাই সঙ্গীতশিল্পীকে সেই শাস্তিই দিয়েছে থাই আদালত।

Advertisement
Tags :
Advertisement