For the best experience, open
https://m.eimuhurte.com
on your mobile browser.
OthersWeb Stories খেলা ছবিঘরতৃণমূলে ফিরলেন অর্জুন সিংবাংলাদেশপ্রযুক্তি-বাণিজ্যদেশকলকাতাকৃষিকাজ বিনোদন শিক্ষা - কর্মসংস্থান শারদোৎসব লাইফস্টাইলরাশিফলরান্নাবান্না রাজ্য বিবিধ আন্তর্জাতিককরোনাএকুশে জুলাইআলোকপাতঅন্য খবর
Advertisement

স্বজন হারানোর যন্ত্রণা! নতুন বছরের শুরুতে শোকে পাথর সায়ন্তিকা

কাছের মানুষকে হারালেন অভিনেত্রী সায়ন্তিকা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রিয়জন হারানোর যন্ত্রণা নিয়েই ২০২৪-এ পা রাখলেন সায়ন্তিকা।
11:14 AM Jan 01, 2024 IST | Sushmitaa
স্বজন হারানোর যন্ত্রণা  নতুন বছরের শুরুতে শোকে পাথর সায়ন্তিকা
Advertisement

নিজস্ব প্রতিনিধি: নতুন বছরে স্বজনহারা টলিউডের বন্দ্যোপাধ্যায় পরিবার। ২০২৩ কে বিদায় জানিয়ে ২০২৪ সালের প্রথম দিন আজ। অনেকরকম আশা এবং স্বপ্নপূরণের লক্ষ্যে সাধারণ মানুষ থেকে সেলিব্রিটি সবাই নতুন বছর শুরু করেছেন। কিন্তু বছর শুরু হতে না হতেই অভিনেত্রী তথা তৃণমূল যুবনেত্রী সায়ন্তিকা বন্দোপাধ্যায়ের পরিবারে শোকের ছায়া। কাছের মানুষকে হারালেন অভিনেত্রী সায়ন্তিকা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রিয়জন হারানোর যন্ত্রণা নিয়েই ২০২৪-এ পা রাখলেন সায়ন্তিকা। যেখানে গতকাল টলিউড  সেলিব্রিটিরা ৩১ জানুয়ারির পার্টির আনন্দে মজেছিলেন, সেখানে বছরের শেষদিন পার্টি নয়, ফিনির স্মৃতিকে আঁকড়ে ধরলেন সায়ন্তিকা। কিন্তু কে এই ফিনি? আসলে তিনি মানুষ নন, অভিনেত্রীর আদরের পোষ্য।

Advertisement

সায়ন্তিকার চারপেয়ে সন্তান। বছরশেষে আচমকাই দুর্ঘটনা। গত ২৯শে ডিসেম্বর মারা গিয়েছে ফিনি। টলিউডের বহু তারকা পোষ্যপ্রেমী। যাঁর ছোঁয়া মাঝে মধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ধরা পড়ে। সায়ন্তিকাও তাঁদের মধ্যে অন্যতম। মাঝে মধ্যেই ফিনিকে নিয়ে টুকটাক ছবি পোস্ট করতেন অভিযাত্রী। এত ব্যস্ততার মাঝেও বাড়িতে ফিরে ফিনির কাছেই তিনি শান্তি পেতেন। সেই ফিনি আর নেই! পোষ্যর মৃত্যুতে স্বাভাবিকভাবেই ভেঙে পড়েছেন সায়ন্তিকা। পাগ প্রজাতির সারমেয় ছিল ফিনি। সায়ন্তিকার সারাক্ষণের সঙ্গী ছিল সে। তাঁর মৃত্যুতে আবেগঘন নায়িকা। ইনস্টাগ্রামে ফিনির সঙ্গে কাটানো একাধিক মুহূর্তের ছবি-ভিডিও পোস্ট করে অভিনেত্রী লিখলেন, ‘তুমি ছিলে এক ছোট্ট পরী।

Advertisement

কখনও আমাদের বিরক্ত করোনি। মৃত্যুর দিনেও না। সব সময় আমাদের মনে থাকবে তুমি। যে শূন্যতা তুমি চলে যাওয়ার পর সৃষ্টি হয়েছে, তার সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছে বাবা-মা। বছরের শেষ দিনে এটাই বলতে চাই, ছদ্মবেশে তুমি ছিলে আমাদের আশীর্বাদ। তোমাকে ভীষণ ভালবাসি। সব সময়, প্রতি পদে তোমায় মিস করছি।’ বন্ধুর  এই যন্ত্রণা অনুভব করতে পেরেছেন একমাত্র মিমি। কারণ তিনিও দু-বছর আগে তাঁর চারপেয়ে সন্তান চিকুকে হারিয়েছিলেন। চেন্নাই থেকেও সুস্থ করে ফিরিয়ে এনেছিলেন চিকুকে। কিন্তু সে বাঁচাতে পারেননি প্রাণের চেয়ে প্রিয় পোষ্যকে। তাই সায়ন্তিকার এই কঠিন সময়ে তাঁর পাশে রয়েছেন মিমি। এদিকে তৃণমূলের কাজ হাতে পেয়েই অভিনয় থেকে এখন খানিকটা দূরেই রয়েছেন অভিনেত্রী। গত ৫ বছরে একটি মাত্র ‘ফ্লপ’ ছবি তাঁর ঝুলিতে। তবে ২০২৩-এ পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তরফ থেকে তাঁকে মহানায়ক সম্মানে ভূষিত করা হয়েছিল। এই নিয়ে কম কটাক্ষের মুখেও পড়তে হয়নি অভিনেত্রীকে। এ বছর বাংলাদেশের নিজস্ব প্রযোজনায় একটি ছবিতে সায়ন্তিকার অভিনয়ের কথা থাকলেও সেখানে গিয়ে তাঁকে হেনস্থার সম্মুখীন হতে হয়। অবশেষে প্রযোজকের সঙ্গে ঝামেলায় জড়িয়ে ছবি থেকে বাদ পড়েন সায়ন্তিকা। সেই ছবিতে জায়েদ খানের সঙ্গে জুটি বাঁধার কথা ছিল অভিনেত্রীর।

‘সেভিংস অ্যাকাউন্ট’ ছবিতে শেষ দেখা গিয়েছিল সায়ন্তিকাকে। তাঁর হাতে আপতত কোনও ছবিও নেই। রাজনীতিই ধ্যান-জ্ঞান অভিনেত্রীর। গতবছর রাজ্য পর্যটন উন্নয়ন পর্ষদের ভাইস চেয়ারম্যান পদে বসেছেন অভিনেত্রী। ২০২১ এর বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূলের টিকিটে বাঁকুড়ার হয়ে দাঁড়িয়েও লড়াইতে হেরে যান নায়িকা। যদিও এখনও তিনি তাঁর জমি এক অংশও ছাড়েননি। বরং প্রায়শই বাঁকুড়া মানুষের সেবায় ছুটে যান অভিনেত্রী। 

Advertisement
Tags :
Advertisement